সারা দেশ জুড়ে করোনা আতঙ্কে নাজেহাল বিশ্ববাসী। একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই রোগ। এই পরিস্থিতিতে বাঁচার একটাই রাস্তা হোম আইসোলেশন। করোনা থেকে নিজেকে আটকাতে আপাতত সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, এবং একা থাকাই সবথেকে বেস্ট অপশন। সারা বিশ্বে লকডাউনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। এই লকডাউন চলাকালীন সকলেই ঘরবন্দি। প্রায় দুই মাসেরও বেশি দীর্ঘ  লকডাউনের পর আগামী ৮ জুন থেকেই খুলতে চলেছে আপনার প্রিয় সময় কাটানোর জায়গা রেস্তোরাঁ। তবে পুরোনো নিয়ম ভুলে যায়। একবারে অভিনবত্বের ছোঁয়া নিয়ে খুলছে রেস্তোরাঁ-ক্যাফে।

আরও পড়ুন-যৌন চাহিদা পূরণে শারীরিক তৃপ্তি মেটাতে লা-জবাব ইলিশ, জানাল গবেষণা...

 

ভোজনরসিকদের জন্য সত্যিই এটা একটা বড় খবর। কতদিন ভালমন্দ খাবারের সঙ্গে দেখা হয়নি অনেকেরেই। অনেকেরই দীর্ঘ একটি খাবারের তালিকা হয়েছে ইতিমধ্যেই। কি খাবেন আর কোথায় খাবেন। 'আফটার লকডাউন' নিয়ে এত প্ল্যান তো করেছেন কিন্তু প্ল্যান-পরিকল্পনা করার আগে চোখ রাখতে হবে নয়া নির্দেশিকাতে। কারণ এবারের রেস্তোরাঁ আপনাকে আমন্ত্রণ জানাবে একেবারে অন্য রূপে।  করোনা ভাইরাস রুখতে একাধিক নিয়ম চালু করা হয়েছে নির্দেশিকায়। দেখে নিন একনজরে।

 

 

বসার চেয়ারের মাঝেই সামাজিক দূরত্ব। সেলফি তুলবেন ঘনিষ্ঠ হয়ে তাতেও রয়েছে বিধিনিষেধ। লকডাউনের পর প্রথম ডিনার ,একে অপরের গা ঘেঁষে বসা, একটা ক্লোজ আপ সেলফি এই সবের মাঝেই বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। তাই আড়াই মাস পর রেস্তোরাঁর গিয়ে ভাল মন্দ খাবারটাই মন দিয়ে খাওয়াটাই বুদ্ধিমানেক কাজ। বসার জায়গা থেকে রেস্তোরাঁর কিচেন সব কিছুতেই লাগু হয়েছে নতুন নিয়ম। ইতিমধ্যেই পাঁচতারা হোটেলগুলিতে এই নিয়ম চালু হয়ে গেছে।

 

 

ভারতে এই প্রথমবার এই সিস্টেম চালু করা হয়েছে।  নিজের মোবাইল থেকেই গ্রাহকরা এই সমস্ত ছবি দেখতে পারবেন। হাইজিন মেনে সব কিছপ আদতে হচ্ছে কিনা তাও দেখতে পাবেন গ্রাহকেরা। অর্ডার দেওয়ার ক্ষেত্রে দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে। এহেন পরিস্থিতিতে ডিজিটালের উপর বেশি জোর দেওয়া হচ্ছে। অর্ডার থেকে পেমেন্ট সমস্ত কিছু মোবাইলের মাধ্যমে করতে পারবেন। মাস্ক পরা থেকে স্যানিটাইজ করা বাধ্যতা মূলক করা হচ্ছে। আগে থেকে অ্যাপের মাধ্যেমে সিট বুক করতে হবে। অ্যাপের মাধ্যমেই অর্ডার দেওয়া-নেওয়া চলবে। কিছু কিছু রেস্তোরাঁয় থার্মাল চেকিংয়েরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে।