হাতে মাত্র কয়েকদিনের ছুটি। তারই মাঝে দু-তিন দিনের জন্য কোথাও থেকে ঘুরে আসার কথা ভাবছেন! সামনেই রয়েছে সুন্দরবন। শীতের মরশুমে নদীর ওপর দুরাত্রি, বরাত সঙ্গ দিলে দেখা মিলতে পারে বাঘেরও। এটি একটি ব্যঘ্র প্রকল্প এলাকা। তড়িঘড়ি পরিকল্পনা করে ফেলুন। রইল বিস্তারিত তথ্য।

কী দেখবেনঃ সুন্দরবনকে সাধারণত দুটি ভাবে ভাগ করা হয়। একদিকে রয়েছে ব্যঘ্র প্রকল্প এলাকা, অন্যদিকে রয়েছে ঘণজঙ্গল। সুন্দরী ও গরান গাছের সমাবেশ। সব মিলিয়ে এক অনবদ্য সুন্দর জায়গা হল সুন্দরবনের এই এলাকা। রয়েছে ব্যঘ্র প্রকল্প এলাকা, সেখানে দেখা মিলবে কুমিরেরও। ওয়াচটাওয়ারে চরে দেখা মিলবে বিস্তির্ণ সুন্দরবনের। 

কীভাবে যাবেনঃ রেল কিংবা গাড়ির সাহায্য পৌঁছে যান ক্যানিং স্টেশনে। সেখান থেকে সোনাখালি গাট। সেখান থেকেই খেয়া কিংবা স্টিমার, লঞ্চ ধরে ভ্রমণে বেড়িয়ে পড়তে হবে বিপুল জলরাশির মধ্যে দিয়ে। 

কোথায় থাকবেনঃ সাধারণত বাঘ দেখার আশায় পর্যটকেরা থাকেন লঞ্চেই। বেশ কয়েকটি পয়েন্ট আছে সুন্দরবন অঞ্চলের। তারই মধ্যে একটি বেছে নিয়েও কটেজে রাত কাটানো যেতে পারে। বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এখানে বুকিং করা যায়। 

খরচ কতঃ খুব বেশি খরচ এই ট্রিপে হয় না। বরং সস্তাতেই মিলবে অনবদ্য পদের সম্ভার। থাকা খাওয়া নিয়ে মাথাপিছু খরচ দাঁড়াবে ৩৫০০ টাকা।