সংখ্যাটা নেহাতই কম নয়। ৫০০০ থেকে ২৫০০০ কর্মী ছাঁটাই করতে চলেছে  হোটেল পরিষেবা সংস্থা ওয়ো। সারা বিশ্বে জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। আর এই ভাইরাসের জেরেই সারা বিশ্বজুড়ে ব্যবসায় মন্দা  দেখা দিয়েছে। যার ফলেই এই বিপুল সংখ্যক কর্মী ছাঁটাইদের সিদ্ধান্ত নিয়ে ওয়ো।  এর মধ্যে সবথেকে বেশি চিনের মানুষেরা রয়েছেন। এছাড়াও আমেরিকা ও ভারতেও কর্মী ছাঁটাই করা হবে।

আরও পড়ুন-রাজ্য জুড়ে মোট ৭,২২৮টি শূন্যপদ, শুরু হয়ে গিয়েছে আবেদন পক্রিয়া...

২০১৩ সাল থেকে সফটব্যাঙ্কের আর্থিক সহায়তা পাওয়ার পর  থেকে সারা বিশ্বজুড়ে খুব তাড়াতাড়ি  শাখাপ্রশাখা বিস্তার করেছিল ওয়ো। সেই সঙ্গে ভারতীয় স্টার্টআপ সংস্থার বাজার মূল্য বেড়ে গেছে। যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। আর এর সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে লোকসান।  সফটব্যাঙ্কের পক্ষ থেকেই ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি হচ্ছে ওয়োর উপর। আর যার কারণেই ওয়োকে লাভজনক করে তোলার টার্গেটের উপর জোর দিয়েছন ওয়োর প্রতিষ্ঠাতা রীতেশ আগরওয়াল। আর সেই কারণেই এই কর্মী ছাঁটাই করে বিপুল খরচ কমিয়ে মুনাফা ধরে রাখতে চাইছেন এই সংস্থা।

আরও পড়ুন-করোনা ভাইরাস আতঙ্কে নয়া কোপ বাজারে, ঘাটতি হ্যান্ড স্যানিটাইজারের...

সম্প্রতি ওয়োর তরফ থেকে আর্থিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।  সেখানেই লোকসানের হিসেব প্রকাশ্যে এসেছে। আর এই করোনা ভাইরাসের জেরেও ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে এই সংস্থা।   করোনা ভাইরাস। নামটা শুনলেই প্রত্যেকেই যেন আতঙ্কিত। করোনা আতঙ্কে ইতিমধ্যেই ভয়ে কাঁপছে চিন।  শুধু চিন নয়, চিনের পাশাপাশি একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে প্রবেশ করছে এই ভাইরাস।  একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস।  মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু। কোনওভাবেই আটকানো যাচ্ছে না এই ভাইরাসকে। নোবেলা করোনা প্রকৃতির এই করোনা ভাইরাস। বিশেষজ্ঞরা বলছেন এটি আসলে ফ্ল্যাবিও ভাইরাস, যা খুব দ্রুত ছড়িয়ে যাচ্ছে।  হু হু করে বাড়ছে মৃত্যু সংখ্যা। সারা বিশ্বে জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস।