শহরজুড়ে প্রেমের মরশুম। দুদিন আগে থেকেই শুরু হয়ে গেছে এই দিন উৎযাপান। শহরে আকাশে, বাতাসে , চারিদিকে শুধু প্রেম প্রেম রব।  রোজ ডে, প্রপোজ ডে -র পর চকোলেট ডে-র পালা। আজ হল সেই বিশেষ দিন। নিজের মনের মানুষকে মনের কথা জানানোর পাশাপাশি আজকের দিনে চকোলেট কিন্তু মাস্ট। আর এই চকোলেট প্রেমেক বন্ধনকে আরও বাড়িয়ে তোলে। বাজারে হরেক রকেমর চকোলেটের সম্ভার নিয়ে পসরা সাজিয়ে বসেছে দোকানিরা। নিজের বা সঙ্গীর পছন্দমতো চকোলেট কিনে উপহার দিন আজকের এই চকোলেট দিবসের বিশেষ  দিন।

 

 

 চকোলেট দিবসের বিশেষ  দিনে অনেকেই তো নিজের প্রিয় মানুষকে বিভিন্ন কিছু উপহার দেয়, কিন্তু চকোলেটের গোটা একটা মানুষ উপহার হিসেবে কাউকে দেওয়া খুব একটা দেখা যায় না। কিন্তু এরকমই নজিরবিহীন একটা ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। পতুর্গিজ মূর্তি নির্মাণকারীর এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসা মাত্রই হৈ চৈ শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কী এমন করলেন তিনি। বিষয়টি একটু খোলসা করে বলা যাক। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর বড় ফ্যান পর্তুগিজ মূর্তি নির্মাণকারী জর্জ করডোসা। সম্প্রতি রোনাল্ডোর একটি চকোলেটের মূর্তি তৈরি করে তিনি সবাইকে অবাক করে দিয়েছেন।

 

 

পুরো চকোলেটের তৈরি মূর্তিটা করতে সময় লেগেছে মোট ২০০ ঘন্টা। ভক্তের কাছে প্রেম, ভালবাসা, শ্রদ্ধা নিবেদন যে এভাবে করা যায় তার প্রমাণ দিলেন জর্জ । মোট ১২০ কেজি চকোলেট দিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর এই মূর্তিটা তৈরি করেছেন জর্জ। মূর্তিটির উচ্চতা ১.৮৭ মিটার। তার হাতের তৈরি এই মূর্তি সকলের কাছে প্রশংসার যোগ্য তো বটেই  তার পাশাপাশি এ যেন এক বড় প্রাপ্তি। ১২০ কেজি ওজনের চকোলেট রোনাল্ডোর গায়ে রয়েছেব পর্তুগালের জার্সি। আর জার্সি ঠিক মাঝখানে রয়েছে সাত নম্বর ব্যাজ।  তার চুলের স্টাইল, থেকে হাঁসি, জুতো সমস্তটাই নিখুঁত ভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন এই শিল্পী। চকোলেট দিবসের দিন এর থেকে ভাল উপহার আর কীই বা হতে পারে।