আপনার হয়তো বন্ধু অন্ত প্রাণ। যাঁকে বন্ধু ভাবেন, সে বিপদে আপদে পড়লেই ছুটে যান। নিজেকেও সমস্যার মধ্যে জড়িয়ে ফেলেন। কিন্তু আপনি যাঁদের বন্ধু বলে মনে করেন তাঁরাও কি একই রকম ভাবেন! নাকি প্রয়োজনে তাঁদের টিকিটি দেখা যায় না। এ অভিজ্ঞতা অবশ্য কম বেশ সকলেরই থাকে। যত বয়স বাড়ে কমচে থাকে তাই বন্ধুর সংখ্যা। তবে প্রথমেই  বোঝা যায় না কোন বন্ধুর মনে কী আছে। কিন্তু কয়েকটি লক্ষণ দেখে ঠিকই আন্দাজ করা যায় কে বন্ধু, আর কে বন্ধু নামে স্রেফ শত্রুতা করছে গোপনে। 

কোন লক্ষণগুলো দেখে চিনবেন এমন বন্ধুদের- 

১) কোনও সাফল্য এলে মানুষ তা বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করে। কিন্তু লক্ষ্য করে দেখবেন আপনার কোনও সাফল্যে এরা মোটেও ততটা উচ্ছসিত নয়। খুব একটা খুশিও নয়। 

২) বন্ধুদের মধ্যে ইয়ার্কি ফাজলামি থাকেই। কিন্তু এরা জন সমক্ষে আপনাকে মজা করেই অপমানজনক কথা বলে। আপনার ভাবমূর্তি অন্যদের চোখে নীচে নামিয়ে এরা আনন্দ পায়। 

৩) নিজের বিপদ হতে পারে ভেবেও আপনি বন্ধুর হয়ে সব সময়ে অন্যায়ের প্রতিবাদ করেন। কিন্তু এরা এটা কখনওই করে না। নিজেকে সেফ সাইডে রাখতে পছন্দ করে এই তথাকথিত বন্ধুরা। 

৪)  এরা সবকিছুতেই আপনার ক্ষুত ধরার চেষ্টা করবে। মানুষের সামনে এমন ভাবে আপনাকে প্রেজেন্ট করবে যেন সত্যিই আপনি ভুল।

৫) ধরুন রেস্তোরাঁয় খেতে যাচ্ছেন, সিনেমা দেখতে যাচ্ছেন, এরা আপনার সঙ্গে থাকতে এক পায়ে রাজি। কিন্তু এরা নিজেদের সময়ের বাইরে গিয়ে কখনওই আপনার সঙ্গে মিশবেন না। বিশেষ করে খারাপ সময়ে এদের টিকিটিও দেখতে পাওয়া যায় না। 

তাও সর্বোপরি, কথায় আছে বন্ধু বিনে প্রাণ বাঁচে না। বন্ধুর সঙ্গে মান অভিমান হলে মিটিয়ে নিন। যত খারাপই হোক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করবেন না। ভুল করলেও সময় ঠিকটা ঠিক বুঝিয়ে দেবে।