মদ খেলে চিন্তাভাবনায় কিছুটা শিথিলতা আসে, এমনটাই মনে করেন অনেকে। তবে মাদকের প্রভাবে মস্তিস্কের কোষ ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যায়। এই বদ অভ্যাসের ফলে দ্রুত অবনতি ঘটতে পারে মানসিক অবস্থার। গবেষকদের মতে, নিয়মিত মধ্যপানের ফলে সাধারনের তুলনায় কার্যক্ষমতা কমে যায়। এছাড়া মারণ রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। সেই সঙ্গে বৃদ্ধি পায় রক্তচাপের মত সমস্যাও। 
কোনও ব্যক্তির মদে আসক্তির ফলে শারীরিক, সামাজিক ও পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতিতে খারাপ প্রভাব পড়ে। নিজের ক্ষতি জেনেও এই অসক্তির ফলে মদ্যপান ছাড়তে পারেন না অনেকেই। যে ব্যক্তি মদ্যপানের মাত্রা আয়ত্তে রাখতে পারেন না, তাকেই অ্যালকোহলের শিকার বলা হয়। এক সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে, দেশের পুরুষ ও মহিলা মিলিয়ে মোট ৫৫ শতাংশ মানুষ নিয়মিত মদ্যপান করেন।  ১৯৮০-র সময়ে দেশে প্রথম অ্যালকোহলের স্বাদ গ্রহণের বয়স ছিল গড়ে ২৮ বছর। বর্তমানে গড় বয়স দাঁড়িয়েছে ১৭ বছরে।
এই আসক্তি থেকে যত দ্রুত সম্ভব বেরিয়ে আসুন। প্রয়োজনে সাহায্য নিন বন্ধু ও প্রিয়জনদের। বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করুন কোনও মিউজিক কনর্সাটে যান। যেই সময়টা মদ্যপান করেন ঠিক সেই সময়টা নিজেকে অন্য কিছুতে ব্যস্ত রাখুন। মন খুলে শপিং করুন, অর ফলে সাময়িকভাবে হয়তো খরচ বাড়বে তবে এই আসক্তি থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন সহজেই।

"