কলকাতার সঙ্গে লন্ডন এর  দূরত্ব দেবী দুর্গার আগমনের মাধ্যমে কমতে চলেছে। করোনা কালে ডিজিটাল এর এই যুগে পুজোও এবার ডিজিটাল। প্রবাসে থেকে যাঁরা নিজের দেশের মাটিকে মনে করেন পুজোর সময় কিন্তু তাঁরা সব ভূগোলের দূরত্ব ভুলে মেতে ওঠেন শারদ উৎসবে। ব্যতিক্রম হল এই বছরটা। করোনা অতিমারির তান্ডবে সবারই  প্রায় একই চিন্তা ছিল এবারের পুজো ঠিক কেমন ভাবে হবে। 

আরও পড়ুন- কুলদেবী সিংহ বাহিনী দুর্গা রূপে পুজিত হন অষ্টধাতুর মূর্তি, পুজোতে তৈরি হয় বিশেষ 'দুগ্গা চচ্চড়ি' ভোগ

কলকাতায় প্যান্ডেল বাঁধা শুরু হলেও লন্ডনে এই বছর পুজোর কোনও অনুমতি মেলেনি। এমন অবস্থায় সুদূর লন্ডনের পুজো হবে খোদ কলকাতায়। পুরোহিত সুবীর চ্যাটার্জি প্রতি বছর লন্ডন যেতেন,এবার মা তাঁর বাড়িতেই আসছেন। অরপিংটন, কেন্ট, লন্ডনের এই শহরে বিগত দুই বছর ধরে  স্বল্প কয়েকটি পরিবারের মূলত মহিলাদের দ্বারা পরিচালিত হয় এই পুজো। 'উৎসব' এই সংস্থার নামেই পুজো হয়ে আসছে। ২০১৮ সালে প্রথম বছরেই লন্ডন এর সেরা পুজোর শিরোপা পায় এই পুজো। এবার করোনা কালে অনুমতি না মেলায় পুজো হাজির হতে চলেছে খোদ শহর কলকাতায়। উৎসব-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে পুরোহিত মশাইয়ের বাড়িতে তাঁদের প্রতিমার ছবি সাজানো হবে,সেখানেই পুজো হবে।

ডিজিটাল স্ট্রিমিং মারফৎ লন্ডনবাসীরা পুজো দিতে পারবেন। জুম এর মাধ্যমে থাকছে নিজের মতো পুজো দেওয়ার ব্যবস্থা,থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। এই উদ্যোগের সঙ্গে আছেন প্রখ্যাত অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তিনি জানান,"এই করোনা কালে পুজোও এবার ডিজিটাল। অরপিংটন,লন্ডনের  পুজো এবার হবে কলকাতায়। ডিজিটাল মাধ্যমে পুজোর এই আয়োজন সার্থক হোক এই প্রার্থনা করি। " পুরোহিত সুবীর চ্যাটার্জি বললেন," পুজো ডিজিটালি হলেও সবাই কিন্তু স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিধিনিষেধ মেনে চলুন।"উৎসব অরপিংটন এর পক্ষে কথা বললেন সিমকি দাস,অর্ণব সেন," এই অতিমারির সময় যে ভাবে আগে পুজো হত,এই বছর তা করা সম্ভব হচ্ছে না। কলকাতার কিছু বন্ধু এই উদ্যোগের সঙ্গে সহযোগিতা করায়, কলকাতা থেকেই এবার পুজোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।"