বার্ষিক আয় ২.৫ লক্ষ টাকার অধিক হলে ইনকাম ট্যাক্স রির্টান জমা দেওয়া বাধ্যতামূল। করদাতাদের সুবিধার জন্য ই-ফাইলিং এর সুবিধাও করেছে আয়কর বিভাগ। আজ ৩১ অগাস্ট আয়কর জমা দেওয়ার শেষ দিন।  

প্রতি বছরের মত ২০১৮-২০১৯ অর্থবর্ষের আয়কর জমা দেওয়ার শেষ দিন আজ। অনলাইন এবং অফলাইফ দুই ভাবেই জমা দিতে পারবেন আয়কর দাতারা। ই-ফাইলিং ওয়েবসাইটে নিজের ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড, জন্ম তারিখ দিয়ে কেওয়াইসি সম্পূর্ণ করতে হবে। এরপরে নির্দিষ্ট অর্থবর্ষ সিলেক্ট করে অনলাইল ফর্ম ফিলাপ করে সাবমিট করতে হবে।

সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ডিরেক্ট ট্যাক্স এর পক্ষ থেকে গত ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে যারা আয়কর রিটার্ন দাখিল করেনি, তাদের অনুগ্রহকালীন সময়ের জন্য ৩১ আগস্ট অবধি বাড়ানো হয়েছিল এই সময়সীমা। যে আয়করদাতা আজ তাদের আইটিআর ফাইল করতে পারবেন না, তবে এই কাজটি আবশ্যিকভাবে ৩১ মার্চ, ২০২০ এর মধ্যে শেষ করতে হবে। যদি ২০১৮-২০১৯ অর্থবর্ষ হিসেবে আপনার মোট বার্ষিক আয় ২.৫ লক্ষ টাকার বেশি হয়, তাহলে ইনকাম ট্যক্স রিটার্ন করা বাধ্যতামূলক। সিনিয়র সিটিজেনদের ক্ষেত্রে আয়ের উর্ধ্বসীমা হল ৩ লক্ষ টাকা। ৮০ বছরের অধিক ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে সেই আয়ের সীমা রয়েছে ৫ লক্ষ টাকা।

এদিকে পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে আয়কর জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে প্যান কার্ড ও আধার কার্ড বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ এই প্রস্তাব রেখেছিলেন বাজেট ঘোষনার সময়। এই বিষয়ে যুক্তি হিসেবে তিনি জানিয়েছিলেন, যদি কোনও আয়কর দাতার প্যান কার্ড না থাকে তাহলে তিনি আধার কার্ড ব্যবহার করেই সঠিক সময়ের মধ্যে আয়কর জমা দিতে পারবেন।

তবে দেরিতে আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে রয়েছে কিছু নিয়ম। কোনও ব্যক্তি যদি আজ অর্থাৎ নির্ধারিত তারিখের পরে ৩১ ডিসেম্বরের আগে আইটিআর ফাইল করলে তবে ৫০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। আগামী বছর ২০২০ পয়লা জানুয়ারী থেকে ৩১ শে মার্চের মধ্যে রিটার্ন জমা দিলে এই জরিমানার মূল্য হবে ১০,০০০ টাকা। তবে যাঁদের বার্ষিক আয় ৫ লক্ষ টাকা বা তার কম তাদের ক্ষেত্রে ১০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।