দেশের জাতীয় সড়কের টোল প্লাজাগুলিতে টোল গৃহীত হবে শুধুমাত্র ফাস্ট্য়াগের মাধ্যমে। এদিন অর্থাৎ ১৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে এই নিয়ম। জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের আওতাধীন প্রায় ৫৬০টির মত টোল প্লাজায় ট্যাক্স নেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হবে এই ইলেকট্রনিক পদ্ধতি। 

আরও পড়ুন- লতার গানের পর, প্রজ্ঞার নতুন গানে আবারও মজেছে নেট দুনিয়া

কেন্দ্রের ঘোষণা অনুযায়ী ১৫ ডিসেম্বর রবিবার থেকে টোল দেওয়ার জন্য বাধ্যতামূলকভাবে ফাস্ট্য়াগ চালু হওয়ার কথা ছিল। তবে সাধারণ মানুষের অসুবিধার কথা চিন্তা করে টোল প্লাজাগুলিতে রাখা হয়েছে বিকল্প ব্যবস্থাও। কী এই ফাস্ট্য়াগ! ফাস্ট্য়াগ হল ডিজিটাল ট্যাগ বা স্টিকার। যা রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন পদ্ধতিতে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম। কেন্দ্রের নিয়ম অনুযায়ী, গাড়ির সামনের দিকে কাঁচে লাগানো থাকবে এই ডিজিটাল স্টিকার। স্ক্যানারের মাধ্যমে সেই স্টিকার স্ক্যান করেই কাটা হবে টোল ট্যাক্স। ফলে যাত্রা পথের অনেকটা সময় বাঁচবে বলে আশা করেছেন সড়ক পরিবহন মন্ত্রকের অধিকারিকরা।

আরও পড়ুন- পাব্লিক সার্ভিক কমিশনের পরীক্ষা হবে জানুয়ারীতেই, রয়েছে ৪০০০ শূণ্যপদ, রইল বিস্তারিত

জানা গিয়েছে, সমস্ত টোল প্লাজাতেই ন্যাশনাল ইলেট্রনিক টোল কালেকশন-এর এই লেন থাকছে। যেই গাড়িতে এখনও ফাস্ট্য়াগ নেই তাদের জন্য থাকছে আলাদা লেন, যেখানে কেশ দিয়েই ট্যাক্স দিতে পারবেন। তবে ভুল করে কোনও গাড়ি যদি ফাস্ট্য়াগ লেন-এ ঢুকে পড়েন তবে তাকে দ্বিগুণ ট্যাক্স দিতে হবে। তবে লেন-এর বিষয়ে জানানোর জন্য টোল ট্যাক্সের ২০০ থেকে ২৫০ মিটারের আগে লোক থাকবে। যারা গাড়িচালকদের লেনের বিষয়ে জানিয়ে দেবেন।