পারিবারিক অশান্তির জেরেই কি আত্মহত্যা? আইআইটি-র পড়ুয়ার অস্বাভাবিক মৃত্যুতে ঘনাচ্ছে রহস্য। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়গপুরে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: করোনা সতর্কতায় অরক্ষিত স্টেশন, দিনেদুপুরে লুট হয়ে গেল সরকারি চাল

মৃতের নাম ভবানী কণ্ডল রাও। বাড়ি, অন্ধ্রপ্রদেশের বিজয়নগরে। খড়গপুর আইআইটি-র মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের পঞ্চম বর্ষের ছাত্র ছিলেন ভবানী। হস্টেলে থেকে পড়াশোনা করতেন তিনি। সোমবার সকালে হস্টেলের ঘরেই তাঁর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান সহপাঠীরা। ঘটনাটি জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় ক্যাম্পাসে।  খবর দেওয়া হয় আইআইটি কর্তৃপক্ষকে। ঘটনাস্থলে আসে খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।  জানা গিয়েছে, গত ফ্রেরুয়ারি মাসে বিয়ে করেছিলেন ভবানী। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। কিন্তু কেন? পরিবারে কোনও অশান্তি চলছিল বলে মনে করা হচ্ছে। 

আরও পড়ুন: পেটের জ্বালায় লকডাউন লঙ্ঘন, বজ্রাঘাতে প্রাণ হারালেন মুর্শিদাবাদের কৃষক

আরও পড়ুন: জোড়া ঘুর্ণাবর্তের জের, কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায় কালবৈশাখীর দাপট

করোনা আতঙ্কে এখন পঠনপাঠন বন্ধ। হস্টেলে যাঁরা থাকতেন, তাঁদের অনেকেই বাড়ি ফিরে গিয়েছে। বাড়িতে বসেই অনলাইনে ক্লাস করছেন পড়ুয়ারা। শুধু তাই নয়, সংক্রমণের আশঙ্কায় ক্য়াম্পাসে পড়ুয়াদের জমায়েত বা জটলার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। বাইরে থেকে যদি কোনও পড়ুয়া আসেন, তাহলে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।