করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক নিয়ে যখন চিন,ভারত সহ সারা পৃথিবী জুড়ে ত্রাস। ঠিক সেই সময় ভিন্ন ভালোবাসার কথা শোনালো পিন্টু জানা ও এঞ্জেল। সংক্রমণের আতঙ্কে ভয় না পেয়ে চিনের এঞ্জেলকেই জীবনসঙ্গী হিসাবে বেছে নিল পূর্ব মেদিনীপুরের পিন্টু জানা। চিনের গোয়াং প্রদেশের এঞ্জেলের সঙ্গে পিন্টুর  প্রেমের গল্প এখন সবার মুখে মুখে।

নেহরু-ও কি সাম্প্রদায়িক ছিলেন, প্রশ্নের প্যাঁচে কংগ্রেস-কে ঘায়েল করলেন মোদী

ঠিকানা  বলছে,পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথির পশ্চিম পারুলিয়ার বাসিন্দা পিন্টু। প্রেমিকা এঞ্জেল থাকে চিনের গোয়াং প্রদেশে। এই বিশাল দূরত্বের ব্যবধান মিটিয়েছে পারিবারিক ব্যবসা। পিন্টুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ছোট মামার হাত ধরে চিনে সাত বছর আগে গার্মেন্টস-এর ব্যবসা করতে গিয়েছিল পিন্টু। সেখানেই এঞ্জেলের সঙ্গে তাঁর পরিচয়। সেই পরিচয় ধীরে ধীরে প্রণয়ের সম্পর্ক গড়ে তোলে । সেই সম্পর্কের হাত ধরে মেয়ে ও ছেলের পরিবার সিদ্ধান্ত নেয় চার হাত এক করে দেওয়ার। 

সৌরভের নাম ভাঙিয়ে বিজ্ঞাপন, ফ্ল্য়াট কিনতে গিয়ে ফাঁদে একাধিক মানুষ

চলতি মাসের চার তারিখ বিয়ের দিন স্থির হয় । একমাস আগে থেকেই হিন্দু মতে বিয়ের সব ঠিকমতোই চলছিল। ১০-১২ দিন আগে হঠাৎ করে উদয় হওয়া করোনা ভাইরাস সব তাল কেটে দেয়। বিয়ের কী হবে চিন্তায় পড়ে দুই পরিবার। পরে পিন্টু ও এঞ্জেলের পরিবার ঠিক করে বিয়ে হবে নির্দিষ্ট দিনেই । কোনও ভাবেই মেয়ে এঞ্জেল ও ছেলে পিন্টু ভিসা নিয়ে ভারতে চলে এলেও চিনে আটকে পড়ে কনের পুরো পরিবার। 

'কারও কাছে আমার জন্য যদি এতটুকু সময় না থাকে, তা হলে আমি কী করব'

সেই বিচ্ছেদের মধ্যেই মঙ্গলবার চার হাত এক হলো দুজনের। কিন্তু কবে ভারতে আসতে পারবে এঞ্জেল-এর পরিবার তার এখনও কোনও ঠিক নেই। কবে তাঁরা আশীর্বাদ করতে পারবে নব দম্পতিকে এখন সেই অপেক্ষায় প্রহর গুনছে পিন্টুর পরিবার।