জল্পনা চলছিল,সেই পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেল ছত্রধর মাহাতোর তৃণমূলে যোগ। বিশেষ করে শনিবার বিকেলের পর ঝারগ্রাম শহরে একটি অতিথি নিবাসে মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ছত্রধর মাহাতোর দীর্ঘ গোপন বৈঠক এই জল্পনাকে আরও উসকে দিয়েছে।

শনিবার ঝাড়গ্রাম জেলার প্রথম ঝুমুর মেলার উদ্বোধনে উপস্থিত হয়েছিলেন শিক্ষা মন্ত্রী তথা ঝাড়গ্রাম জেলার পর্যবেক্ষক পার্থ চট্টোপাধ্যায় । অনুষ্ঠানের পরে ঝাড়গ্রাম রাজবাড়ির টুরিস্ট কমপ্লেক্সে ডাকা হয়েছিল সদ্য জেল থেকে জামিনে মুক্ত ছত্রধর মাহাতোকে। এই গোপন বৈঠকে হাজির ছিলেন সস্ত্রীক ছত্রধর মাহাতো  । বৈঠকের পরেই ছত্রধর মাহাতোর তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা আরও বেড়ে গিয়েছে।

তবে পুরো বিষয়টি ধোঁয়াশার মধ্যে রেখেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও ছত্রধর মাহাতো দুজনেই।  এদিন এই বৈঠকের পর ছাত্রধর মাহাতো জানান,"পার্থবাবু কথা বলার জন্য আমাকে ডেকেছিলেন। কুশল বিনিময় হয়েছে।তবে দলের হয়ে কাজ করার বিষয়ে আরও কিছুটা সময় চেয়েছি। আমি আরও কিছুদিন সময় নিয়ে পরিস্থিতি দেখব। পরিষ্কার সিদ্ধান্ত এখনও জানায়নি।" 

একইভাবে এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন," উনি সবে বাইরে এসেছেন। বাইরের আলো-বাতাসটা একটু দেখুক। প্রথমে সৌজন্যমূলক সাক্ষাৎকার আজ হল। এরপর এসব নিয়ে বলব। "  তবে এই বৈঠকে জঙ্গলমহলের সক্রিয় নেতা হিসাবে কাজ করার জন্য ছত্রধরকে যে তৈরি করা হয়েছে, তা না বললেও সহজেই অনুমেয়। জঙ্গলমহলের জন্য তৃণমূলের দায়িত্বে থাকা পর্যবেক্ষক পার্থ চট্টোপাধ্যায় তাই ছত্রধরকে নিয়ে এই গোপন বৈঠক করেছেন শনিবার। কেউ কেউ ইতিমধ্যে বলতে শুরু করেছেন ঝাড়্গ্রাম জেলা তৃণমূলের সম্ভাব্য জেলা সভাপতি হয়তো ছত্রধর মাহাতই।