লকডাউনের মাঝেই রমরমিয়ে চলছে গাঁজার কারবার! ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার কাণ্ড মেদিনীপুর শহরে। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে, লাঠিচার্জ করতে হয় পুলিশকে। আটক করা হয় বেশ কয়েকজনকে। পরে অবশ্য জামিনে ছাড়া পায় সকলেই।

আরও পড়ুন: লকডাউন সফল করতে 'গান্ধীগিরি', ফুল-মালা নিয়ে রাস্তায় নামল পুলিশ

মেদিনীপুরে শহর লাগোয়া আবাস এলাকায় আয়ুষ দপ্তরের ভবনে করোনা হাসপাতাল চালু করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন ১৪ জন। তাঁদের সরিয়ে আনা হয়েছে নতুন হাসপাতালে। কিন্তু হলে কী হবে! এলাকার বস্তিতে যে 'গাঁজা বিক্রি' হচ্ছে! ভিড় করছেন বহিরাগত খদ্দেররা। ঘটনায় রীতিমতো আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা। জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে গাঁজা বিক্রির প্রতিবাদ করেন এলাকার বাসিন্দারা। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি। গাঁজা বিক্রেতারা প্রতিবাদীদের উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। দু'পক্ষে মধ্য়ে সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়। খবর পেয়ে কোতুয়ালি থানার পুলিশ যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছয়, ততক্ষণে পরিস্থিতি কার্যত হাতের বাইরে চলে গিয়েছে। বাধ্য হয়েই ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: 'থালা বাজাতে বলে এবার হাতে হ্যারিকেন', মোদীর 'গিমিক'-এর পিছনে বিজ্ঞান খুঁজছেন বামেরা

আরও পড়ুন: রাজ্য়ে করোনায় আক্রান্ত এবার এক নার্স, পরিবারকে কোয়ারেনটাইনে থাকার নির্দেশ স্বাস্থ্য দফতরের

আরও পড়ুন: লকডাউনে পড়ুয়ারা পড়বে এবার টিভির সামনে বসে, চ্যানেলেই ক্লাস নেওয়ার পরিকল্পনা রাজ্যের

মেদিনীপুর শহর লাগোয়া ওই বস্তিতে গাঁজা বিক্রির কথা স্বীকার করে নিয়েছে মিনু প্রামাণিক নামে এক মহিলা। সে জানিয়েছে,, 'আগে গাঁজা বিক্রি করতাম। লকডাউন জারি হওয়ার পর কারবার বন্ধ রেখেছি।  কিন্তু বারণ করলেও কেউ শুনছে না। গাঁজা কিনতে ভিড় করছে।' এদিকে  লকডাউন অগ্রাহ্য করে রাস্তায় বেরনোয় শুক্রবার মেদিনীপুর শহরে এলআইসি মোড় থেকে কয়েকশো পথচারীকে আটক করে পুলিশ। পরে অবশ্য তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়।