শাজাহান আলি, পশ্চিম মেদিনীপুর-কোনও ক্রমে প্রাণ রক্ষা সবজি বিক্রিতার। জঙ্গলের রাস্তায় সবজি বিক্রির জন্য যাওয়ার পথে আচমকা পথ আটকে দাঁড়াল হাতি। অগত্যা কোনও উপায় না দেখে সবজি বোঝাই বাইক ফেলে চম্পট দিলেন সবজি ব্যবসায়ী। গাছের আড়াল থেকে দাঁড়িয়ে দেখলেন বস্তা ছিঁড়ে সেখান থেকে সবজি বের করে অনায়াসে খেয়ে ফেলল হাতিটি। সবজি খেয়ে জঙ্গলে চলে গেল হাতিটি। হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন ওই সবজি বিক্রেতা।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনী থানার অন্তর্গত তিলাঘাগরির জঙ্গলে। জানাগেছে, হাতের মুখে পড়েন জঙ্গল লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দা ধীরেন মাহাতো। মঙ্গলবার সকালে মধুপুর গ্রাম থেকে সবজি বোঝাই বাইক নিয়ে জঙ্গলের রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। সেই সময় আচমকা রাস্তার উপর ধীরেন মাহাতো দেখেন একটি দাঁতাল হাতি দাঁড়িয়ে রয়েছে। হাতিটিকে দেখে কিছুটা দূরেই বাইক থামিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন তিনি। কিছুক্ষণ পর, হাতিটি আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে তাঁর দিকে ছুটে আসে। কোনও রকম বাইক ছেড়ে জঙ্গলের ভিতর নিরাপদ জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকেন ধীরেন মাহাতো। তিনি দেখেন, বাইক থেকে সবজির বস্তা টেনে নামিয়ে খেতে শুরু করে হাতটি। 

আরও পড়ুন-সাপে কাটা রোগীর সফল ডায়ালিসিস, অসাধ্য সাধন করল শালবনী করোনা হাসপাতাল

এই অবস্থায় কোনও উপায় না দেখে আতঙ্কে চিৎকার শুরু করে দেন ধীরেন বাবু। ছুটে আসেন আশেপাশে থাকা গ্রামের লোকজন। সকলে মিলে হাতটিতে তাড়াতে সক্ষম হন তিনি। বাইকে থাকা অবশিষ্ট সবজি গুলিও আর ফিরিয়ে নেওয়ার মতো ছিল না। সেগুলি গ্রামবাসীদের দিয়ে দেন ধীরেন মাহাতো।

আরও পড়ুন-বুদ্ধগয়া-খাগড়াগড় বিস্ফোরণকাণ্ড, এবার আল কায়দা যোগে শিরোনামে মুর্শিদাবাদ

ঘটনার জেরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়া অন্যান্য লোকজনের। অভিযোগ, ওই রাস্তায় দাঁতাল হাতির হামলায় আগেও বহু মানুষের প্রাণ কেড়েছে। বন দফতরের কাছে এই রাস্তাটি হাতি থেকে সুরক্ষার দাবি জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা।