সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর: আমফানের ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির অভিযোগে ক্ষোভ বাড়ছে আমজনতার। বিক্ষোভের আঁচ এবার পৌঁছে গেল পূর্ব মেদিনীপুরেও।  জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল পটাশপুর। অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশকে লক্ষ্যে ইঁটবৃষ্টি শুরু করেন বিক্ষোভকারীরা।  আত্মরক্ষায় পালটা কাঁদানে গ্যাস সেল পুলিশও। করা হয় লাঠিচার্জও।

আরও পড়ুন: সুন্দরবনে কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বিপদ, ফের বাঘে টেনে নিল গেল মৎস্যজীবীকে

আমফানের ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির অভিযোগ উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। পরিস্থিতি সামাল দিতে কোথাও পঞ্চায়েত প্রধানকে বহিষ্কার, তো কোথাও আবার দলের নেতাদের শোকজ করেছে তৃণমূল। কিন্তু তাতে যে ক্ষোভ কমছে না! ঘুর্ণিঝড় যাঁরা সত্যিই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন, তাঁদের সরকারি সাহায্য থেকে বঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে রাজ্যের সর্বত্রই। সেই অভিযোগেই শুক্রবার সকালে পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুর ২ নম্বর ব্লকের মতিরামপুরে এগরা-বাজকুল রাজ্য সড়ক অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দীর্ঘক্ষণ অবরোধে ব্যাহত হয় যান চলাচল। 

আরও পড়ুন: বীরভূমের ইলামবাজারে বিস্ফোরণ, উড়ে গেল ঘরের ছাউনি

এদিকে খবর পেয়ে পটাশপুর ২ নম্বর পঞ্চায়েত সভাপতি চন্দন সাউ যখন ঘটনাস্থলে যান, তখন তাঁকে ঘিরেও বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন অবরোধকারীরা।  এরপরই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশবাহিনী। অবরোধ তোলার চেষ্টা করতেই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে।  তর্কাতর্কি থেক হাতাহাতি, শেষপর্যন্ত পুলিশকে লক্ষ্য করে ইঁটবৃষ্টি শুরু করেন বিক্ষোভকারীরা। ইটের আঘাতে জখম হন বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মীরা। কিন্তু ঘটনা হল, লাঠিচার্জ করেও বিক্ষোভকারীদের বাগে আনা যায়নি। কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটানো হয়। তাতেই বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান। ঘটনার পর থেকে থমথমে পটাশপুর। এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে প্রচুর পুলিশ।