শাজাহান আলি, পশ্চিম মেদিনীপুর-বিজেপি কর্মীর মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল পশ্চিম মেদিনীপুরের মোহনপুরে। ঝুলন্ত অবস্থায় দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন থাকায় পরিকল্পিত খুন বলে দাবি করছে প্রতিবাদ শুরু করে বিজেপি। দেহ নিয়ে যেতে পুলিশকে বাধা দেওয়া হয়। ঘটনার জেরে তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

আরও পড়ুন-কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে নভেম্বর থেকে অস্ট্রলিয়া সফরে টিম ইন্ডিয়া, ওডিআই ও টি-২০ ম্য়াচ খেলবেন কোহলিরা

পুলিশ সূত্রে খবর, নবমীর দিন ঠাকুর দেখতে বেরিয়ে নিখোঁজ ছিলেন মোহনপুরের শিয়ালসাই গ্রামের বাসিন্দা বাচ্চু বেরা। তারপর থেকে সম্ভাব্য জায়গায় খোঁজা শুরু করে। এই অবস্থায় গ্রামের পাশে ঝুলন্ত অবস্থায় দেহেরল হদিশ মেলে। বাচ্চুর শরীরে আঘাতে চিহ্ন ও নিম্নাঙ্গ রক্তাক্ত হওয়ায় খুনের অভিযোগ করেছেন বিজেপি নেতৃত্ব। বাচ্চু বেরা তাঁদের সমর্থক ছিলেন বলে দাবি বিজেপির। পুলিশ খবর পেয়ে দেহ আনতে এলে বাধা দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনায় ওই বিজেপি কর্মীকে পরিকল্পিত খুনের অভিযোগ করেছেন বিজেপি নেতারা।

আরও পড়ুন-এই প্রথমবার, অযোধ্যা পাহাড়ে দুর্গাপুজো করল CRPF জওয়ানরা

বিজেপির জেলা সভাপতি সমিত দাসের অভিযোগ, ''তৃণমূলের লোকেরা পরিকলস্পিতভাবে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দিয়েছে। দলদাসে পরিণত হয়েছে দাঁতন ও মোহনপুর থানার পুলিশ কর্মীরা। এই কাণ্ডে জড়িত মোহনপুর থানার আইসি। খুনের ঘটনায় আসিকেও গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি''।

আরও পড়ুন-কাদা মেখে বিজয়ার শুভেচ্ছা বিনিময়, অভিনব বিজয়া দশমী পালন বাঁকুড়ায়

বিজেপি কর্মী খুনের প্রতিবাদে সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। দেহ তুলতে গিয়ে উত্তেজিত বিজেপি কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়ে পুলিশ। বেশ কিছুক্ষণ জাতীয় সড়ক অবরোধের জেরে যানজটের সৃষ্টি হয়। অন্যদিকে, তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতির দাবি, ''বাচ্চু বেরাকে খুনের অভিযোগ ভিত্তিহীন।  রাজনীতিকরার জন্য বিজেপির একটে দেহের প্রয়োজন ছিল, বিজেপি তা পেয়েছে''।