গভীর রাতে স্বামীকে ঘরে তালাবন্ধ বাড়ির উঠানে আত্মহত্যা করলেন এক মহিলা! ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা টাউনে। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। কিন্তু কী কারণে এমন ঘটনা ঘটল? বুঝে উঠতে পারছেন না কেউই।

আরও পড়ুন: বহরমপুরে তৃণমূল কর্মীকে গুলি করে খুন, আটক ১

মৃতার নাম করুনা রুইদাস। চন্দ্রকোনা শহরের বেগুনবাড়ি এলাকায় স্বামীর সঙ্গেই থাকতেন বছর পঁয়তাল্লিশের ওই গৃহবধূ। মদ্যপানের অভ্যাস ছিল দু'জনেরই। রোজকার মতোই মঙ্গলবার রাতেও খাওয়া-দাওয়া সেরে শুয়ে পড়েছিলেন করুণা ও তাঁর স্বামী প্রহ্লাদ। বিপত্তি ঘটে বুধবার ভোরে। মৃতার স্বামীর দাবি, ঘুমে ওঠে দেখেন, ঘরের দরজা বাইরে থেকে বন্ধ! কী ব্যাপার? কৌতুহলবশত যখন জানলা দিয়ে বাইরের দিকে তাকান প্রহ্লাদ, তখন উঠানে স্ত্রীর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান তিনি! এরপরই চিৎকার করতে শুরু করেন তিনি। চিৎকার শুনে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। খবর দেওয়া হয় চন্দ্রকোনা থানায়। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: করোনা থেকে বাঁচতে গোমূত্র পান, অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি যুবক

কিন্তু হঠাৎ করে আত্মহত্যা করতে গেলেন করুণা? তা স্পষ্ট নয়। বরং ঘটনার হতবাক মৃতার স্বামী ও পাড়া প্রতিবেশীরা। স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য, স্বামী-স্ত্রীর প্রায় রোজই মদ্যপান করতেন। তবে তাঁদের মধ্যে কোনও অশান্তি ছিল না। তাহলে নেশার ঘোরেই কি এমন ঘটালেন ওই গৃহবধূ নাকি এর পিছনে অন্যকোনও কারণ আছে? তদন্তে নেমেছে পুলিশ।