পুরভোটের আগে অধীর চৌধুরীর গড়ে খুন হয়ে গেলেন এক তৃণমূল কর্মী।  খুব কাছ থেকে তাঁকে লক্ষ্য করে এলোপাথারি গুলি চালাল দুষ্কৃতীরা। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মুর্শিবাদের বহরমপুরে। পুলিশ একজনকে আটক করেছে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: একটি ছাগল ছানার মৃত্যু, আর তাই নিয়ে ধুন্ধুমার তৃণমূল কংগ্রেস বনাম আমলাদের

মৃতের নাম চিরঞ্জীব চক্রবর্তী। বাড়ি, বহরমপুর কেএন কলেজের কলেজে কাছে। দলের বহরমপুর টাউন সভাপতি নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ট ছিলেন তিনি। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বাইক চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন চিরঞ্জিৎ। সঙ্গে আরও একজন সঙ্গী ছিলেন। অভিযোগ, বহরমপুরের ইন্দ্রপ্রস্ত এলাকায় তাঁর বাইকটি আটকায় দু'জন দুষ্কৃতী এবং খুব কাছ থেকে গুলি চালায় তারা। গুলির শব্দ পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছন, ততক্ষণে পালিয়েছে হামলাকারী। রক্তাক্ত অবস্থায় ওই তৃণমূলকর্মীকে নিয়ে যাওয়া মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ভর্তি হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই চিরঞ্জিৎ-কে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুনসিকিমে বেড়াতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পর্যটকরা, ৫ জনের মৃত্যু

এদিকে বুধবার সকালে ঘটনাটি জানাজানি হতেই রীতিমতো শোরগোল পড়ে বহরমপুরে।  তৃণমূল কংগ্রেসে টাউন সভাপতি নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায়ের বক্তব্য, পুরভোটের আগে সন্ত্রাসে আবহ তৈরি করতে পরিকল্পনামাফিক দলের কর্মীকে খুন করা হয়েছে। দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি তুলেছেন তিনি। ঘটনায় একজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।