পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে এবার তৈরি হচ্ছে হিন্দু মন্দির। ভারতের প্রতিবেশী পাকিস্তান মূলত ইসলাম প্রধান দেশ হলেও সেখানে বহু হিন্দুও বাস করেন। আর এই হিন্দুদের প্রতি পাক সরকারের দমন-পীড়নের কথা মাঝেমধ্যে মানবাধিকার সংগঠনগুলির দৌলতে বিশ্বের সামনে চলে আসে।  পাকিস্তানে বসবাসকারী হিন্দুদের মধ্যে অনেকেই থাকেন রাজধানী ইসলামাবাদে। কিন্তু দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেও তাঁদের জন্য কোনও দেবালয় নেই। যা ছিল বয়স ও রক্ষণবেক্ষণের অভাবে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। কিন্তু ইসলামাবাদের হিন্দুদের বহুদিনের দাবি এবার পূরণ হতে চলেছে। রাক রাজধানীর ৯/২ সেক্টরে কৃষ্ণ মন্দির নির্মাণ হচ্ছে। 

আরও পড়ুন: করোনার ওষুধ "সিপরেমি"আসছে ভারতের বাজারে, ১০০ মিলি ডোজের দাম পড়বে প্রায় ৫ হাজার টাকা

মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ছবি সম্প্রতি ট্যুইটারে শেয়ার করেছেন পাকিস্তানের মানবাধিকার বিষয়ক সংসদীয় সম্পাদক লাল চাঁদ মাহি।ট্যুইটারে তিনি লেখেন এটাই হতে যাচ্ছে ইসলামাবাদের প্রথম হন্দিু মন্দির।

 

ইসলামাবাদের হিন্দুদের এতদিন ধর্মীয় আচার পালন করতে যেতে হত রাওলপিন্ডি সহ অন্যান্য শহরে। রাজধানীতে বসবাসকারী হিন্দু সংখ্যালঘুরা বারবার এইজন্য মন্দিরের দাবি জানিয়ে এসেছেন। এজন্য  ২০১৭ সালেই হিন্দু কাউন্সিলকে ক্যাপিটেল ডেভেলপমেন্ট কর্তৃপক্ষ  ২০ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমি মন্দির নির্মাণের জন্য দিয়েছিলেন। কিন্তু বারবার কোনও না কোনও কারণে পিঁছিয়ে গিয়েছিল এই মন্দির নির্মাণের কাজ। এবার সেই অপূর্ণ কাজই শুরু করলেন লাল চাঁদ। 

আরও পড়ুন: ভয়াবহ ভূমিকম্পের রেশ না মিটতেই ২৪ ঘণ্টায় ১৪০ বার "আফটারশক", তছনছ রিসর্ট শহর হুয়াতুলকো

ইসলামাবাদের হিন্দু পঞ্চায়েত সমিতি এই মন্দিরের নাম রেখেছে শ্রীকৃষ্ণ মন্দির।  লাল চাঁদ মাহি ছাড়াও  প্রীতম দাস, মহেশ চৌধুরি, অশোক কুমার সহ বাকি হিন্দু পঞ্চায়েত সদস্যদের উপস্থিতিতে এবার মাটি খুঁড়ে কাজ শুরু হলো মন্দিরের। পাকিস্তানের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রী পির নুরুল হক কাদরি জানিয়েছেন, এই মন্দির নির্মাণ করতে প্রায় ১০ কোটি টাকা খরচ হবে। যার ব্যয়ভার বহন করবে পাক সরকারই।

শুধু মন্দির নয় হিন্দুদের জন্য এবার শ্মশানও তৈরি করছে ইমরান সরকার। মন্দির চত্বরের একধারে তৈরি হবে এই শ্মশান। 

সংখ্যালঘু মানুষের উপর পাক সরকারের অত্যাচারের কথা প্রায়শই খবরের শিরোনামে আসে। বিশেষ করে সেদেশে বসবাসকারী হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষেরা নিরাপত্তা নিয়ে বারবার প্শ্ন উঠেছে। ধর্মান্তকরণ, ধর্ষণ, নাবালিকা বিয়ে সহ একাধিক ঘটনায় মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের হিন্দুরা। নয়া পাকিস্তান স্বপ্ন দেখিয়ে  ইমরান খান সরকারের ক্ষমতায় এলেও তার আমলেও  সংখ্যালঘু হিন্দুরা নানাভাবে অত্যাচারিত হচ্ছেন। এই নিয়ে আন্তর্জাতিক চাপের মুখেও পড়েছে ইসলামাবাদ। তাই এবার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের উপর পাকিস্তান সরকার যে যথেষ্ট দায়িত্ববান তা বোঝাতে ইসলামাবাদে হিন্দু মন্দির তৈরি করতে চলেছেন ইমরান।