চলতি মাসের শুরুতেই জম্মু ও কাশ্মীরের ওপর থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা রদ এবং জম্মু ও কাশ্মীরকে দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তকে 'বেআইনি' তকমা দিয়েছে পাক সরকার। শুধু তাই নয় এর পাল্টা হিসাবে ভারতের সঙ্গে একে একে সব কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার পথে এগিয়েছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে ভারতীয় হাই কমিশনারকে।

এরপর থেকে বারবারই ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষেপে দাবি করেছে পাক সরকার। আর এবার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করা নিয়ে ইরানের রাষ্ট্রপতি হাসান রোউহানিকে ফোন করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের প্রতিবাদের কথাও তাঁকে জানিয়েছেন ইমরান খান। 

পাক প্রধানমন্ত্রীর দফতরের তরফে প্রকাশিত একটি বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের নীতি বিরুদ্ধ কাজ করেছে ভারত। সেখানে আরও বলা হয়েছে,জম্মু ও কাশ্মীরের ডেমোগ্রাফিক পরিকাঠামো পরিবর্তন করে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছে ভারত।

কাশ্মীর ইস্যু জানাতে পাক প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্য়েই ফোন করেছেন ব্রিটেন এবংমালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীদের, পাশাপাশি ফোন করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট, সৌদির যুবরাজ এবং বাহরিনের রাজাকে-ও। পাক প্রধানমন্ত্রী দফতর সূত্রে আরও দাবি করা হয়েছে যে, কাশ্মীরে বসবাসকারী মুসলিমদের মানবাধিকার ও আইনি অধিকার সুনিশ্চিত করার আবেদন জানিয়েই ইরানের প্রেসিডেন্টকে ফোন করেছেন ইমরান খান।