বিরোধীদের একটানা আক্রমণে দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান-এর। আর তারপরই প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী তথা  পিএমএল-এন প্রধান নওয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় হাঁটলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ ভারতের নির্দেশেই নাকি ইসলামাবাদের শক্তিশালী সামরিক স্থাপনাগুলিকে নিশানা করছেন টার্গেট করে শরিফ।

অসুস্থতার কারণে কারাবন্দি প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী শরীফকে আদালত চার সপ্তাহের জন্য দেশ ছাড়ার অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু, একবার পাকিস্তান ছাড়ার পর আর দেশে ফেরেননি তিনি। গত মাসে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা-ও জারি করেছে পাক আদালত। ফিরে আসা তো দূরের কতা, লন্ডনে বসেই নওয়াজ শরিফ ইমরান খান ও তাঁর সরকার এবং পাক সেনাবাহিনীর পদস্থ কর্তাদের বিরুদ্ধে কড়া আক্রমণ শুরু করেছেন। সামরিক বাহিনীর বিরুদ্দে তিনি রাজনৈতিক ক্ষেত্রে হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনেছেন। তাঁর দাবি, ২০১৮ সালের নির্বাচনে কারচুপি করে ইমরান খানকে ক্ষমতায় এনেছে সেনাবাহিনী। কারণ ইমরান সেনার হাতের পুতুল। সেইসঙ্গে এক পাক টেলিভিশনে তিনি ইমরান খানকে 'অযোগ্য', 'পাগল' বলেও সম্বোধন করেছেন। বলেছিলেন দেশ পরিচালনার বিষয়ে ইমরানের কোনও ধারণাই নেই।

এরপর পাকিস্তানের সামা টিভিতে প্রচারিত এক সাক্ষাত্কারে শরিফকে পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় গেলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ইমরান খান বলেছেন, 'নওয়াজ একটি বিপজ্জনক খেলা খেলছেন'। ভারত যে তলে তলে নওয়াজ শরীফকে সাহায্য করছে, সেই বিষয়ে তিনি একশো শতাংশ নিশ্চিত বলে দাবি করেন ইমরান। সেইসঙ্গে তার আরও দাবি, তাঁর সরকার এবং পাক সেনাবাহিনী - যে যার নিজের এক্তিয়ারে থেকে কাজ করছে বলে, বর্তমানে সেনার সঙ্গে পাক সরকারের সম্পর্ক 'ইতিহাসের সেরা' জায়গায় রয়েছে।

নওয়াজ শরিফ-কে একেবারে ব্যক্তিগত স্তরে আক্রমণ করে পাক প্রধানমন্ত্রী আরও বলেছেন, শরিফ মারা যাওয়ার ভান করে জনগণকে নির্লজ্জভাবে মিথ্যা বলে বিদেশে পালিয়ে গিয়েছেন। তবে পাক সরকারের পক্ষ থেকে ব্রিটিশ সরকারকে নওয়াজ শরিফকে প্রত্যর্পনের জন্য অনুরোধ করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ইমরানের অভিযোগ নওাজ শরিফ লন্ডনে বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করছেন এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন।