অবশেষে অপেক্ষার অবসান। ১০০ জন বন্দি ভারতীয় মৎস্যজীবীকে প্রত্যার্পণ করতে চলেছে পাকিস্তান। পাকিস্তান হাই কমিশনারেট থেকে লিখিত বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে আগামী ৭ এপ্রিল ওয়াঘা পার করবেন পাকিস্তানে জেলবন্দি অবস্থায় থাকা ১০০ জন জেলে। 

প্রসঙ্গত ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক থেকে দিন কয়েক আগেই পাকিস্তানকে চিঠি দিয়ে জানানো হয়, অন্তত ৩৮৫ জন ভারতীয় জেলে পাকিস্তানে বন্দি হয়ে রয়েছে। রয়েছেন ১০ জন সাধারণ মানুষও। তাঁদের অবিলম্বে ভারতে পাঠানোর বন্দোবস্ত করুক পাকিস্তান। সেই আর্জিতেই সাড়া দিয়ে সৌজন্য দেখাল পাকিস্তান। বিদেশমন্ত্রক সূত্রে সবুজ সংকেত মিলেছে এই তথ্যে।

সূত্রের খবর, আগামী তিন সপ্তাহেরপ মধ্যে মোট ৩৬০ জন বন্দিকেই ওয়াঘা সীমান্ত পার করিয়ে দিতে পারে পাকিস্তান। প্রতি দফায় ১০০ জনের একটি দলের মুক্তি মিলতে পারে। এদের বেশির ভাগই দিউ অঞ্চল দিয়ে অজ্ঞাতসারে প্রবেশ করেছে।

বলাই বাহুল্য, এত বড় বন্দি প্রত্যার্পণ হাল আমলে দেখেনি ভারত-পাকিস্তান। শেষ ২০১০ সালে  ৪৪২ জন ভারতীয় মৎস্যজীবীকে ছেড়েছিল পাকিস্তান।

ইমরান জমানায়  পুলওয়ামা কাণ্ড ও ভারতের বালাকোট আক্রমণকে ঘিরে তিক্ততার চরমে পৌঁছেছে দুই দেশের সম্পর্ক। ছিন্ন হয়েছে আর্থ-সাংস্কৃতিক যোগাযোগ। এই অবস্থায় পাকিস্তানের এই নতুন উদ্যেগকে প্রশংসাই করছেন বিশিষ্টজনেরা। পাকিস্তানের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে, তাদের ৫০ জন মৎস্যজীবীও ভারতে বন্দি রয়েছে। মেয়াদ ফুরোনোর পরেও বন্দিদশায় রয়েছে বেশ কিছু পাকিস্তানি নাগরিক। তাঁদের যেন অবিলম্বে মুক্তি দেওয়া হয়।