মঙ্গলবার রাওয়ালপিন্ডিতে ভেঙে পড়ল পাকিস্তানি বিমানবাহিনীর একটি ট্রেনিং বিমান। জানা গিয়েছে ট্রেনিং চলাকালীন রওয়ালপিন্ডি শহরের উপকণ্ঠে ভেঙে পড়ে বিমানটি। পাক সেনা সূত্রে খবর দুর্ঘটনায় পাইলট-সহ বিমানে থাকা ৫ সেনাকর্মী মারা গিয়েছেন । এছাড়াও এই ঘটনায় আরও ১২ জন স্থানীয় মানুষেরও মৃত্যু হয়েছে। 

পাক সেনাবাহিনীর তরফে থেকে জানানো হয়েছে রুটিন মহড়া চলাকালীন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে তাদের সামরিক পরিবহনের একটি বিমান। রাওয়ালপিন্ডি শহরের লাগোয়া মোড়া কালু গ্রামে ভেঙে পড়ে সেটি। যদিও দুর্ঘটনার সঠিক কারণ এবং দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানটি কোন ধরনের ছিল, সেই বিষয়ে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর তরফ থেকে কিছু জানানো হয়নি। জানা গিয়েছে, হঠাৎ করেই কন্ট্রোল টাওয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় বিমানটির। কি কারণে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছিল তা নিয়ে তদন্ত চলছে। 

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি বিমানটি ভেঙে পড়ার সময় বিস্ফোরণের তীব্রতায় আশেপাশের বেশ কয়েকটি বাড়িতে আগুন লেগে যায়। মাটির বাড়িগুলি সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর তাতেই ১২ জন মারা যান, এবং আরও ১২ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে অনেকের অবস্থাই আশঙ্কাজনক। রাওয়ালপিন্ডি দমকল বাহিনীর শীর্ষকর্তা ফারুক বাট জানিয়েছেন, তাঁদের ধারণা দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানটি একটি ছোট বিমান ছিল। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা গেলেও এখনও উদ্ধারকাজ চলছে।