পাক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথম মার্কিন সফর শেষে দেশে ফিরে নিদের দলের নেতা কর্মীদের কাছ থেকে উষ্ণ অভ্যর্থনা পেলেন ইমরান খান। বুধবার রাতে ইসলামাবাদ বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাতে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের বেশ কয়েকজন পদস্থ নেতা, ছিলেন বহু কর্মী-সমর্থকও। আর তাতেই আবেগে ভেসে গিয়ে ইমরান খান বলে দিলেন তাঁর মনে হচ্ছে সরকারি সফর নয় বোধহয় বিশ্বকাপ জিতে দেশে ফিরলেন।

বিমান বন্দরে উপস্থিত মনেতা-কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশ্যে তিনি ফের আউরালেন নয়া পাকিস্তান গড়ার কথা। দেশকে মহান করে তোলার কথা। তুললেন কবি তথা দার্শনিক আল্লামা ইকবালের প্রসঙ্গও। জানাসলেন ভিক্ষা চেয়ে বা মাথা নত করে মহান হওয়া যাবে না। তিনি নিজেও কারোর সামনে কখন মাথা নোয়াননি, কোনও পাক নাগরিককেও তা করতে দেবেন না।

কিন্তু, সত্যিই কি মার্কিন সফরে ইমরান বিশ্বকাপ জিতলেন? শুরুটা বেশ হোঁচট খেয়ে হলেও পরে কিন্তু ইমরান খুব খারাপ সামাল দেননি। বিশেষ করে ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাশ্মীর সমঝোতা মন্তব্যকে তাঁর বড় সাফল্য বলা যায়। তবে তাঁকে স্বীকার করতে হয়েছে পাকিস্তানে জঙ্গি উপস্থিতি নিয়ে গত ১৫ বছর ধরে মিথ্যে বলা হয়েছে। তাঁর প্রধান লক্ষ্য ছিল আমেরিকার সঙ্গে পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ফের স্বাভাবিক করা। সেই বিষয়ে এখনও কোনও ঘোষণা হয়নি। সামনের কয়েকদিনে বোঝা যাবে তিনি বিশ্বকাপ জিতলেন না গ্রুপ থেকে ছিটকে গেলেন।