ভারতীয় ক্রীড়া জগৎ এর মধ্যেই দানের নিরিখে নজির সৃষ্টি করেছেন। বিভিন্ন বিভাগের অসংখ্য ক্রীড়াবিদ নিজেদের সাধ্যমতো অর্থ প্রধানমন্ত্রী এবং নিজ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করেছেন। নোবেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঠেকানোর এই লড়াইতে সামিল হয়েছেন বিভিন্ন ক্ষেত্রের অনেক ক্রীড়াবিদ এবং প্রত্যেকেই নিজের দিক থেকে যেটুকু করা সম্ভব সেটুকু করেছেন। সেই ক্রীড়াবিদদের লিস্টটা নেহাত ছোট নয়, বরং তা বেড়েই চলেছে। 

আরও পড়ুনঃক্লার্কের সেরা ৭ ব্য়াটসম্যানের তালিকায় ভারতের সচিন ও কোহলি, বাদ স্টিভ স্মিথ

ক্রিকেটের কিংবদন্তি সচিন টেন্ডুলকার থেকে শুরু করে বিরাট কোহলি, বক্সিংয়ের তারকা মেরি কম থেকে শুরু করে টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা, ভারতীয় ফুটবল দলের প্রত্যেক খেলোয়াড় তাদের তরফ থেকে অর্থসাহায্য করেছেন এবং বার্তা দিয়েছেন যে এই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে সকলকে এক হয়ে লড়তে হবে। 

আরও পড়ুনঃকরোনা যুদ্ধে এবার ৫৯ লক্ষ টাকা অনুদান দিলেন কিংবদন্তী ভারতীয় ব্যাটসম্যান সুনীল গাভাসকর

এইবার সেই ক্রীড়াবিদদের তালিকায় সামিল হলেন তরুণ ভারতীয় গলফ খেলোয়াড় অর্জুন ভাটি। ৩ টি বিশ্ব গলফ চ্যাম্পিয়নশিপ সহ নিজের অর্জিত সমস্ত ট্রফি বেচে দিলেন গলফ খেলোয়াড় অর্জুন ভাটি। ট্রফি বিক্রির যাবতীয় টাকা তিনি জমা দিলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে। ত্রাণ তহবিলটি বানানোই হয়েছে এই মহামারীর দ্বারা প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে আক্রান্ত মানুষদের সাহায্যার্থে। 

আরও পড়ুনঃবিশ্ব জুড়ে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে সচেতনতা প্রচারে অংশ নেবে ইষ্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান ক্লাব

নিজের ১০০টিরও বেশি ট্রফি বিক্রি করে ৪ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা তুলেছেন অর্জুন। ১৫ বছর বয়সী অর্জুনের এহেন ত্যাগ স্বীকার দেখে অভিভূত অনেকেই। নয়ডার বাসিন্দা অর্জুন জানিয়েছেন তার আত্মীয় এবং বন্ধুরা স্বারক গুলি বিক্রি করতে তাকে সাহায্য করেছেন যথেষ্ট। আপাতত সেগুলি বাড়িতেই আছে। লকডাউন উঠলে সেগুলো জায়গামতো পৌঁছে দেওয়া হবে। দেশের এই অবস্থায় তার তরফ থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পেরে খুশি অর্জুন।