টেস্ট ক্রিকেটে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের মিডিল অর্ডারে ত্রাতা ছিলেন তিনি। রাহুল দ্রাবিড়ের পরেই আসত তার নাম। ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ইডেন টেস্টে ২৮১ রানের ঐতাহাসিক ইনিংসের স্মৃতি এখনও টাটকা সকলের মনে। এছাড়াও  দেশে বিদেশে বহু ম্যাচে  রক্ষাকর্তার ভূমিকা পালন করেছেন তিনি। এবার বিরাট কোহলির ব্যাটে লাগাতার রানের খরা নিয়ে মুখ খুললেন ভিভিএস লক্ষণ। 

আরও পড়ুনঃ টেস্ট সিরিজ খোয়ালো ভারত, কিউয়িদের দেশে হোয়াইট ওয়াশ হলেন কোহলিরা

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকেই  চেনা ছন্দে নেই বিরাট কোহলি। টি-টোয়েন্টি, ওয়ান ডে থেকে টেস্ট রানের দেখা নেই ভারত অধিনায়কের ব্যাটে। গোটা সফরে বিরাটের ব্যাট থেকে এসেছে মাত্র একটি অর্ধশতরান।  চারটি টি টোয়েন্টি, তিনটি ওয়ানডে ও দুটো টেস্ট ম্যাচের মোট ১১টি ইনিংস থেকে কোহলির সংগ্রহ ২১৮ রান। রানের গড় কুড়িরও কম।  বিরাটের এই অফ ফর্ম স্বভাবতই চিন্তা বাড়িয়েছে টিম মেনেজমেন্ট থেকে কোহলি ভক্তদের। কারণ সচরাচর লাগাতার চুপ থাকে না বিরাটের ব্যাট। শেষবার ২০১৪ সালে ইংল্যান্ড সফরে ধারাবাহিকভাবে অফ ফর্মের শিকার হয়েছিলেন ভিকে। সেইবার ইংল্যান্ড সফরে পাঁচটি টেস্ট ম্যাচ, পাঁচটি ওয়ানডে ও একটি টি টোয়েন্টি থেকে ২৫৮ রান করেছিলেন তিনি।  জেমস অ্যান্্ডারসন সহ ইংল্যান্ড পেস অ্যাটাকের সুইং বোলিংয়ের সামনে লাগাতার সমস্যায় পড়েছিলেন বিরাট।  এবার নিউজিল্যান্ড সফরেও সেই একইরকমভাবে আউট হতে দেখা গিয়েছে কোহলিকে। সউদি, জেমিইসন, বোল্টদের সুইংয়ের কাছে নড়বড়ে দেখিয়েছে ভিকে-কে। 

আরও পড়ুনঃ সাংবাদিক সম্মেলনেই মেজাজ হারালেন বিরাট, প্রশ্ন শুনে সাংবাদিককে তুলোধনা

আরও পড়ুনঃ গোকুলামকে হারিয়ে বদলা নিতে মরিয়া ইষ্টবেঙ্গল, রক্ষণ নিয়ে চিন্তায় লাল-হলুদ কোচ

বিরাটের খারাপ ফর্ম নিয়ে বলতে গিয়ে ভিভিএস জানিয়েছেন, বল ও ব্যাটের দূরত্ব থেকে যাওয়াই প্রধান সমস্যা বিরাট কোহলির। ফলে এলবিডব্লুউ বা উইকেটের পেছনে ক্যাচ নয়, যেভাবে বিরাটের ব্যাট নামছে তার ফলেই সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে বিরাট কোহলিকে। ২০১৪ ইংল্যান্ড সফরেও বল নড়ছিল। যার ফলে সমস্যায় পড়েছিলেন বিরাট। এবার কিউই সফরেও ব্যাট বলের দূরত্ব থাকাটাই কাল হয়েছে কোহলির। ব্যাট বলের দূরত্ব না কমানোর কারণেই বল  নড়তে শুরু করলেই আউট হয়েছে বিরাট। 

যদিও ওয়েলিংটনে প্রথম টেস্টের ব্যর্থতার পর নিজের ব্যাটিংয়ে কোনও ত্রুটি মানতে চাননি বিরাট। ব্যাটে রান আসাটা শুধু সময়ের অপেক্ষা বলে জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে হার ও নিজের ব্যাটে রান না আসায় স্বভাবতই হতাশ বিরাট। ম্যাচ শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে মেজাজও হারিয়েছেন তিনি। দ্রুত ফর্মে ফেরার জন্য বিরাটকে দ্রুত ব্যাটিংয়ের ত্রুটি সংশোধনের পরামর্শ দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটের ভেরি ভেরি স্পেশাল লক্ষ্মণ।