অলিম্পিক কোয়ালিফায়ারকে কেন্দ্র করে ম্যাচ জিতেও বিতর্কে জড়ালেন ৬ বারের বিশ্ব বক্সিং চ্যাম্পিয়ন এমসি মেরি কম। জুনিয়র বিশ্ব চ্য়াম্পিয়নকে ৯-১ এ হারিয়ে মুখ দর্শন করলেন না মেরি। এমনকী নিখাত জারিনের সঙ্গে খেলার শেষে সৌহার্দ্যপূর্ণ হাতও মেলালেন না। যা নিয়ে আক্ষেপ করেছেন জারিনও।

খেলার শেষে মেরি অবশ্য জানিয়েছেন,ইচ্ছে করেই জারিনের সঙ্গে হাত মেলানি তিনি। কারণ কীভাবে সিনিয়রদের শ্রদ্ধা করতে হয় তা জারিন জানে না। তাই তার  এই ব্য়বহারই প্রাপ্য। জারিনের সঙ্গে মেরি কমের এই সম্পর্কের সূত্রপাত একটি চিঠিকে ঘিরে। যেখানে ৩৬ বছরের মেরিকমের সঙ্গে বাউট চ্য়ালেঞ্জে মুখোমুখি হতে চান জানিন। ক্রীড়ামন্ত্রী কিরণ রিজিজুকে মেরিকমের নাম নিয়ে চিঠি লেখেন নিখাত জারিন। অলিম্পিক কোয়ালিফায়ারের জন্য একপ্রকার ছয় বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নকে পরোক্ষে চ্যালেঞ্জ করে বসেন জারিন। 

যা ভালো চোখে নেননি মেরি কম। প্রকাশ্য়ে ক্রীড়ামন্ত্রীকে বাউটের জন্য লেখায় অসম্মান বোধ করেন তিনি। যার জেরে খেলা শেষ হতে পরাজিত প্রতিযোগীর দিকে তাকাননি তিনি। এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে মেরি কম বলেন, অলিম্পিক কোয়ালিফায়ারে যাওয়ার জন্য আমি ট্রায়াল দেব না এ রকম কথা আমি কখনোই বলিনি। তাহলে কেন আমার নাম এভাবে প্রকাশ্য়ে টেনে আনা হল। সিনিয়রদের কীভাবে সম্মান জানাতে হয় সেটুকু পর্য়ন্ত ও শেখেনি। তাই ওর সঙ্গে খেলার পর ও কোনও সৌহার্দ্য়পূর্ণ আচরণ করিনি। এ তে কী ভুল করেছি।

যদি মেরি কম-এর এই আচরণে অত্যন্ত দুঃখ পেয়েছেন বলে জানান নিখাত জারিন। জুনিয়র এই বিশ্ব বক্সিং চ্যাম্পিয়ন বলেন, আমি নিজের সেরাটা দিয়ে মের কম-এর সঙ্গে হেরেছি। এতে কোনও আক্ষেপ নেই আমার। তবে একজন সিনিয়র হিসাবে ম্যাচের শেষে মেরি যে আচরণ করেছেন তাতে আমি দুঃখ পেয়েছি। আমি ভেবেছিলাম জুনিয়র হিসাবে ও আমার চেষ্টাকে সম্মান জানাবে। কিন্তু ওর ব্য়বহার দেখে আমি হতাশ হলাম।