তিনি ভারতীয় ক্রিকেটের এক নক্ষত্র। খেলা ছাড়ার পরও সচিনের জনপ্রিয়তায় কোনও ভাঁটা পরেনি। সোমবার মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচন হল। গোটা পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে ভোট দিলেন সচিন। বান্দ্রা দক্ষিণ বিধান সভা কেন্দ্রের বুথে দেখা গেল তেন্ডুলকার পরিবারকে। স্ত্রী অঞ্জলি ও ছেলে অর্জুকে সঙ্গে নিয়ে ভোট দিলেন সচিন। সেই ছবিও পোস্ট করলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। একই সঙ্গে দেশের যুব সমাজের কাছে লিটিল মাস্টারের অবেদন, বাড়িতে বসে না থেকে বেড়িয়ে আসুন, ভোট দিন।

আরও পড়ুন - রাঁচিতে ভারতীয় বোলারদের দাদাগিরি, ফের ফলো অন দক্ষিণ আফ্রিকার

 

 

পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে ভোট দিয়ে আসার পর সংবাদ মাধ্যমকে সচিন জানান, সংবাদপত্রে কয়েকটি খবর দেখে অবাক হয়েছেন। একশো বছরের বেশি বয়সের পুরুষ ও মহিলারা ভোট দিতে যাবেন বলেছেন। সেই প্রতিবেদন মনে ধরেছে মাস্টার ব্লাস্টারের। সচিনের মতে, দেশের বরিষ্ঠ নাগরিকরা যখন বয়েসের বাধা অতিক্রম করে ভোট দিতে আসছেন তাহলে যুব সমাজ কেন পিছিয়ে থাকেব। ভোটি দিয়ে তিনিও তাঁর দায়িত্ব পালন করেছেন। বাকিদেরও সেটাই করতে বলছেন সচিন। 

আরও পড়ুন - ড্যামেজ কন্ট্রোলই সৌরভের প্রথম লক্ষ্য, দশ মাসেই কিছু করে দেখাতে চান মহারাজ

মহারাষ্ট্রের ২৮৮টি বিধানসভা আসনে সোমবার ভোটগ্রহন। ভাগ্য নির্ধারন হল ৩২৩৭ জন প্রার্থীর। এবারের নির্বাচনে মূলতে দুই জোটের লড়াই। বিজেপির সঙ্গে লড়াই করছে শিবসেনা। কংগ্রেসের সঙ্গে আছে এনসিপি। ২৪ তারিখ ফল ঘোষণা হবে মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচনের। সচিন ছাড়াও ভোট দিয়ে নিজেদের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করলেন মুম্বাইয়ের সেলিব্রিটি মহল। 

আরও পড়ুন - ১৫০০ ম্যাচের নজির রজারের সামনে, নাদালের বিয়েতে আমন্ত্রণ না পাওয়ায় হতাশ রজার