এতদিন দিন তিনি বাউন্ডারি হাঁকাচ্ছিলেন কলকাতা থেকে মেদিনীপুর অবধি। এবার তিনি  ওভার বাউন্ডারি হাঁকালেন, আর সেই বল গিয়ে পড়ল সোজা নিউইয়র্ক টাইমসের পাতায়! 
সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে  বিক্ষোভকারীদের কুকুরের মতো গুলি করে মারা উচিত বলে মন্তব্য় করে রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছেন বিজেপির রাজ্য় সম্পাদক  দিলীপ ঘোষ। যার প্রতিবাদে এগিয়ে এসেছেন তাঁরই দলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। আসানসোলের সাংসদ তাঁর দলের রাজ্য় সভাপতির মন্তব্য়কে সরাসরি দায়িত্বজ্ঞানহীন বলেছেন। শুধু নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদীরাই নন, দিলীপবাবুর মন্তব্য়ের প্রবল সমালোচনা করছেন বিরোধীরাও। দেশজুড়ে মিডিয়ায় চর্চিত হয়েছে তাঁর এই মন্তব্য়।  যদিও তাতে বিন্দুমাত্র টলানো যায়নি অকুতোভয় দিলীপ ঘোষকে। চাপের মুখে নতি স্বীকার করার লোক যে তিনি নন, তা তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন নিজের বক্তব্য়ে অনড় থেকে।

আরও পড়ুন- দলে এখনও 'ফরেন বডি',মুকুলকে নিয়ে চিন্তা বাড়ছে বিজেপিতে 

আরও পড়ুন- ফের বিজেপির সভাপতি পদে দিলীপ,উত্তর দিলেন নিন্দুকদের
এদিকে, প্রতিবাদী বিক্ষোভকারীদের কুকুরের মতো গুলি চালানোর নিদান দিয়ে কলকাতার মুরলীধর সেন লেন থেকে সোজা তিনি নিউইয়র্কট টাইমের পাতায় চলে গিয়েছেন বিজেপির রাজ্য় সম্পাদক দিলীপ ঘোষ। সেখানে জ্বলজ্বল করছে তাঁর নাম। কী লেখা হয়েছে সেখানে? ১৩ জানুয়ারি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে লেখা রয়েছে : "দিলীপ ঘোষ, আ মেম্বার অব ইন্ডিয়াজ পার্লামেন্ট অ্য়ান্ড দ্য় প্রেসিডেন্ট অব দ্য় বিজেপি ইন ওয়েস্ট বেঙ্গল, মেড কমেন্টস টু পার্টি মেম্বারস অন সানডে ইন আ ডিস্ট্রিক্টস অব দ্য়া স্টেট দ্য়াট বর্ডাস বাংলাদেশে।" কী সেই কমেন্টস: "টু শুট অ্য়ান্ড জেল পিওপিল হু প্রোটেস্ট আ নিউ সিটিজেনশিপ ল দ্য়াট হ্য়াজ ট্রিগার্ড আ মান্থ অব নেশনওয়াইড ডেমোনেস্ট্রেটশনস।" 


যদিও বিতর্কিত মন্তব্য়ের জন্য় দিলীপ ঘোষের সুখ্য়াতি নতুন কিছু নয়। সম্প্রতি তিনি এক জনসভায় বিজেপির বিরুদ্ধে ওঠা মেরুকরণের রাজনীতির অভিযোগ নিয়ে কোনও রাখঢাক না-করে সরাসরিই বলেন, "হিন্দু-মুসলমান ভাগ করেছি বেশ করেছি, তোর বাপের কী রে।"  অভিযোগ, এত কিছুর পরও দলে যে তাঁর গ্রহণযোগ্য়তা বিন্দুমাত্র কমেনি, বরং বেড়েছে, তার প্রমাণ হল ফের তাঁর দলের রাজ্য় সভাপতি হওয়া।  তবে এর আগে দিলীপ ঘোষের "হিন্দু-মুসলমান ভাগ করেছি বেশ করেছি"র স্বীকারোক্তি হোক কি গরুর দুধে সোনা থাকার অভিনব তত্ত্বই হোক, তার জন্য় দেশের বাইরে কখনও মাথা হেঁট হয়নি। এবার কার্যত তা-ই হল। বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রে কীভাবে একজন সাংসদ বিক্ষোভকারীদের কুকুরের মতো গুলি চালিয়ে মারার কথা বলতে পারেন প্রকাশ্য়ে সেই প্রশ্নই তুলেছে নিউইয়র্ক টাইমস। বিএড কলেজের শিক্ষক ও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারী কল্য়াণসুন্দর গুপ্ত প্রশ্ন তোলেন, "এর পরেও দিলীপ ঘোষ রাজ্য়সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন কী করে? তার মানে দলেরও সায় আছে তাঁর এই মন্তব্য়ে।"

আরও পড়ুন- 'ভেবেচিন্তেই গুলি মারার নিদান', বিতর্কের মাঝেও নিজের অবস্থান অনড় দিলীপ