গত ডিসেম্বরে সংসদে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস হওয়ার পর থেকেই বিক্ষোভের আগুনে উত্তাল গোটা ভারত। দেশের নানা প্রান্তে চলছে প্রতিবাদ-আন্দোলন। দেশের গণ্ডী পার করে বিদেশের মাটিতেও সিএএ-এনআরসি বিরোধী বিক্ষোভ-আন্দোলন আছড়ে পড়েছে। এবার তাতে যুক্ত হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের  সিয়াটেল সিটিও। 

ভারতের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছে মার্কিন শহর সিয়াটেল। তবে এবার শুধু আন্দোলনে থেমে থাকেনি এশহর, এনআরসি বিরোধী প্রস্তাব পাস হয়েছে সিটি কাউন্সিলে। আইনের বিরোধিতায় নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করে তা বাতিলের দাবি তুলেছে সিয়াটেল সিটি কাউন্সিল। 

আমেরিকার অন্যতম শক্তিশালী সিটি কাউন্সিল সিয়াটেল সিটি কাউন্সিলে সর্বসম্মত ভাবে নাগরিকত্ব সংশওধন আইন ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জী বিরোধী প্রস্তাব পাশ হয়ে ছে। গোটা দুনিয়ার কাছে সিএএ-বিরোধী বার্তা দিতেই এই নিন্দা প্রস্তাব বলে কাউন্সিলের সদস্যদের বক্তব্য। সেই সঙ্গে ভারতে এনআরসি চালুর ুদ্যোগ বন্ধ করার দাবিতেও সরব হয়েছে কাউন্সিল। বিদেশের মাটিতে এই ঘটনা মোদী সরকার তথা বিজেপির তীব্র অস্বস্তি বাড়িয়েছে তা বলাইবাহুল্য। 

কাউন্সিলে সিএএ বিরোধী প্রস্তাবটি পেশ করেন ইন্ডিয়ান-আমেরিকাম সিটি কাউন্সিলের সদস্যা কসমা সাওয়ান্ত। সর্বসম্মতিক্রমে সেটি পাশও হয়ে যায় কাউন্সিলে। সাওয়ান্ত বলেন, "সিএএ বিরোধী নিনন্দা প্রস্তাবের মধ্যে আইনটি বাতিলের আর্জিও রাখা হয়েছে ভারতের কাছে। সেই সঙ্গে সরকার ভারত যে এনআরসি চালুর উদ্যোগ নিয়েছে, তা বন্ধ করার দাবিও তোলা হয়েছে গৃহীত প্রস্তাবে।" প্রস্তাব পাশের পর সিয়াটেলের রাস্তায় ভারতের সংবিধান বাঁচানোর দাবিতে মিছিলে সামিল হন বহু আন্দোলনকারী। 

সিয়াটেলে সিএএ বিরোধী এই আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক তেহেনমোঝি সুন্দরারাজন। তিনি বলেন, "ভারতের এই আইন নিয়ে গোটা বিশ্বেই হইচই চলছে। সিয়াটেল তাতে শরিক হতে পারায় আমরা গর্বিত। সিয়াটেল সিটি কাউন্সিলের এমন পদক্ষেপকে স্বাগত। আমেরিকার বিভিন্ন প্রান্তের মানুষও কাউন্সিলের গৃহীর নিন্দা প্রস্তাবকে সমর্থন করেছেন।"