গোটা বিশ্বে মহামারির আকারে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা সংক্রমণ। আর এই  সংক্রমণের মোকাবিলা করতে গিয়ে নিজের দেশে  একেবারে নাজেহাল অবস্থা আমেরিকার। তবে এর মধ্যেও নিজেদেক জঙ্গি দমন অভিযান থেকে পিছিয়ে আসছে না ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন। জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটে প্রধান আমির মহম্মদ সইদ আব্দুল রাহমান আল মাওলার খোঁজ পেতে এবার পুরস্কার মূল্য দ্বিগুণ করে দিল মার্কিন সরকার।

 

২০১৯ সালের অক্টোবরে মার্কিন সেনার হামলায় ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠীর প্রধান আবু বকর আল বাগদাদির মৃত্যু হয়। তার উত্তরসূরি হিসাবে এরপর আইসিসের প্রধানের দায়িত্বে বসেন এই আল মাওলা। এতদিন তার মাথার মূল্য আমেরিকা ধার্য করেছিল ৫ মিলিয়ন ডলার। কিন্তু এবার মার্কিন মুলুকের ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটস রিওয়ার্ডস ফর জাস্টিস প্রোগামে সেই পুরস্কার অঙ্ক দ্বিগুণ করে দেয়। ফলে এবার ইসলামিক স্টেট প্রধানের সন্ধান দিতে পারলেই হাতে নগদে মিলবে ১০ মিলিয়ন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৭৫ কোটি ৫৪ লক্ষ ১২ হাজার ৫০০ টাকা।

ইসলামিক স্টেট প্রধান কোথায় আত্মগোপন করে রয়েছে, সেই সম্পর্কে খোঁজ দিতে পারলেই মিলবে এই বিপুল পরিমাণ অর্থ। সেক্ষেত্রে ঠিকানা জানা না থাকলেও হবে। তবে শনাক্তকরণ সম্পর্কিত বিশদ তথ্য দিতে হবে মার্কিন গোয়েন্দাদের। 

আরও পড়ুন: আমেরিকায় প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যা ‘১০ গুণ’ বেশি, ছাড়িয়ে গিয়েছে ২ কোটির গণ্ডি

জানা যাচ্ছে, আইসিসের বর্তমান প্রধান আমির মহম্মদ সইদ আব্দুল রাহমান আল মাওলা ওরফে আবু উমর তুর্কমানির জন্ম ১৯৭৬ সালে ইরাকের মসুলে। আইসিসে যোগ দেওয়ার আগে আল মাওলা ইরাকের আল কায়দা জঙ্গি সংগঠনের অন্যতম নেতা ছিলেন। ইসলামিক স্টেটে বাগদাদির সহযোগী হিসাবেই তিনি যোগ দেন। 

আরও পড়ুন: বিমান চালাতেই জানেন না দেশের ৪০ শতাংশ পাইলট, পাক সংসদে চাঞ্চল্যকর দাবি খোদ মন্ত্রীর

উত্তর-পশ্চিম ইরাকে ইয়াজিদি ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অপহরণ থেকে হত্যা ও পাচার, সব রকমের অপরাধের সঙ্গেই আল মাওলা যুক্ত বলে দাবি মার্কিনি গোয়েন্দাদের। এমনকি বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসবাদী হামলাতে নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। চলতি বছর মার্স মাসেই আল মাওলাকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসাবে ঘোষণা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।