বিধানসভা ভোটের আগে আরও জমে উঠল বাংলার রাজনীতি। এতদিন পর্যন্ত মনে করা হচ্ছিল ২০২১ সালে বাংলার বিধানসভা ভোটের লড়াই হতে চলেছে মূলত দ্বিমুখী। শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান প্রতিপক্ষ বিজেপি। কিন্তু এবার সেই লড়াই ত্রিমুখী হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। কারণ বাম-কংগ্রেস জোটে আসছে ফুরফুরা শরিফের পিরজাদা আব্বাস সিদ্দিকির নতুন দল ‘ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট’। যার ফলে এই জোটও বাংলার ভোটে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে চলেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

মঙ্গলবার জোট রফা নিশ্চিৎ করতে বৈঠকে বসেছিল বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ নেতারা। সূত্রের খবর, প্রথমে ৭০টি আসন দাবি করলেও, পরে আলোচনার মাধ্যমে তা কমে ৫০ আসনে রাজি হয়েছে আব্বাস সিদ্দিকির দল। আসন রফা নিয়ে আগামি দিনে বৈঠকের মাধ্যমে ঠিক হবে জানা গিয়েছে। তবে জোট যে পাকা তা এদিন স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন বিমান বসু, অধীর চৌধুরী, নওসাদ সিদ্দিকিরা। বাম ও কংগ্রেসের জোট ও আসনরফা যে চূড়ান্ত তা আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তবে এবার আব্বাস সিদ্দিকির দলকে ২:১ ফর্মুলায় আসন ছাড়তে চাইছে বামেরা। সেক্ষেত্রে কমগ্রেসের নমনীয়তা প্রয়োজন। তবে বিজেপি ও তৃণমূল রুখতে যেনতেন প্রকারে এই জোট করতে বদ্ধপরিকর বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ।

মঙ্গলবার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী এবং বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়ে দেন, বাম-কংগ্রেস জোটে আসছে আইএসএফ-সহ আরও বেশ কয়েকটি দল। অধীর চৌধুরী বলেন, বাম-কংগ্রেস বৈঠকে আসনরফা চূড়ান্ত। ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে বাম-কংগ্রেস জোট। বাংলায় দ্বিমুখী নয়, ত্রিমুখী লড়াই হতে চলেছে। আইএসএফ জোটে আস্থা প্রকাশ করেছে। রয়েছে এনসিপি, আরেজডিও। আসন রফা ঈসোচনার মাধ্যমে ঠিক হবে। তবে আগামী দিনে এই বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেস, বিজেপি নয়, বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ জোট সরকার গড়বে।'

বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু বলেন, তৃণমূল ও বিজেপিকে রুখতে বাম বাম-কংগ্রেস ধর্ম নিরেপক্ষ জোটও ভরসা। আইএসএফের সঙ্গেও কথা চূড়ান্ত হয়েছে। ৫০ আসনের রফা মেনেই জোট বলে স্পষ্ট জানিয়ে দেন বিমান বসু। আইএসএফ নেতা নওসাজ সিদ্দিকি জানিয়েছেন, জোটের কথা চূড়ান্ত। ৫০টি আসন আমরা চেয়েছি। আগামি দিনে আলোচনার মাধ্যমে তা নিশ্চিৎ হবে। ফলে আগামি বিধানসভা নির্বাচনে বাম-কংগ্রেস জোটকে অনেকেই অপ্রাসঙ্গিক মনে করছিল। তবে আব্বাস সিদ্দিকির দলের সঙ্গে জোট করায় বাংলার ভোট যুদ্ধ এবার হতে চলেছে ত্রিমুখী।