সপ্তাহ খানেক আগে ইন্দো-বাংলা সীমান্তের মুর্শিদাবাদ জেলায় জোড়া রাজনৈতিক সভা বাতিল করে দেওয়া হয়। তাতেও দমে যাওয়ার পাত্র নয়  মিম প্রধান আসাউদ্দিন ওয়াইসি। সপ্তাাহ না গড়াতেই মঙ্গলবার বিকেলে ঝটিকা সফরে  টানটান উত্তেজনার মধ্যে দিয়ে মুর্শিদাবাদে সপ্তম দফার  ভোটের আগেই সটান হায়দ্রাবাদ থেকে উড়ে এসে মুর্শিদাবাদের মাটির গৌরীপুর এইচ এইচ এস মাঠে  সভা করেন ৬০ নম্বর সাগরদিঘী বিধানসভা ঘোষিত মিমের প্রার্থী নুর মাহবুব আলমের হয়ে।

আরও পড়ুন, 'আনন্দ বর্মনের মৃত্যুতে নীরব কেন মমতা', দলিত ইস্য়ুতে মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন নাড্ডার  


 সভা শেষ করে আসামে যাওয়ার পথে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একাধিক বিষয়ের নানান জল্পনা উস্কে দিলেন এই হায়দ্রাবাদি রাজনীতিবিদ আসাউদ্দিন ওআইসি। একদিকে পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তুলোধোনা করতে এতটুকুও ছাড় দিলেন না এদিন ওআইসি। শুরু থেকেই রনং দেহি ভূমিকায় তৃণমূলের আমলের বিগত  খতিয়ান তুলে ধরে সংখ্যালঘু মুসলিমদের  কেন শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের দিক থেকে পিছিয়ে থাকতে হয় সেই নিয়ে কাঠগড়ায় দাঁড় করান মমতাকে। এর পরেই তীব্র রাজনৈতিক জল্পনা উস্কে দিয়ে আসা উদ্দিন সাহেব সাংবাদিকদের বলেন," এবার থেকে মুর্শিদাবাদ জেলা কে আমরা নজরে রাখতে শুরু করলাম আগামী দিনে ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত ব্যবস্থায় পুরোপুরি ভাবে লড়বো।' মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম করে বলেন," এর আগে গত সপ্তাহে মুর্শিদাবাদের জলঙ্গি ও ভরতপুর এলাকায় মিমের প্রার্থীর সমর্থনে আমার রাজনৈতিক সভার অনুমোদন দেওয়া হয়নি। আসলে তৃণমূল সরকার নিম কে ভয় পেয়ে গিয়েছে সেই জন্য মুর্শিদাবাদের তার গতিপথ অবরুদ্ধ করে দেওয়ার জন্য এই পরিকল্পনা করে। তবে এতে কোনও লাভ হবে না। আরও বেশি করে শক্তিশালী হয়ে আমরা মুর্শিদাবাদ জেলায় দাঁতে দাঁত দিয়ে লড়াই করে যাব।'

 

আরও পড়ুন, রাসবিহারী কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী বালাকোট হামলার নেপথ্য নায়ক সুব্রত সাহা 

 

 পরিশেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তিনি বলেন,'যেখানে মিম লড়ছে না সেই সব জায়গায় কংগ্রেসকে ভোট নয়"। তবে সেইসব বিধানসভা কেন্দ্রে কাকে ভোট দেয়া হবে সেই নিয়ে কোন মন্তব্য করেননি মিম প্রধান"। তিনি আরোও বলেন, মুর্শিদাবাদে"জার্নি বিগিন্স, উই ওয়ান্ট টু উইন দা হার্টস  এন্ড মাইন্ড অফ দ্যা পিপল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গল।' আর এই বক্তব্যের পরই রীতিমতো শোরগোল শুরু হয়ে গিয়েছে মুর্শিদাবাদের রাজনৈতিক মহলে।মিম প্রধানের একাধিক প্রশ্নোত্তর ঘিরে উঁকিঝুঁকি দিচ্ছে নানান রাজনৈতিক সম্ভাবনা আগামীদিনের নির্বাচনকে ঘিরে।