নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অর্মত্য সেনের বাড়ি জমি চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুলেছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। জমি জবরদখল করে রাখার অভিযোগ তুলেছে বিশ্বভারতী। এই অবস্থায় নোবেলজয়ীর পাশে থাকার বার্তা দিয়ে অর্মত্য সেনকে চিঠি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। বিশ্বভারতীর আচরনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার নোবেলজয়ী পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন সুশীল সমাজ। রাজ্যের মন্ত্রী তথা ব্রাত্য বসুর ডাকে বিশ্বভারতীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সরব হবেন বিদ্বজনেরা।
আরও পড়ুন-ভোটের আগে নৃশংস রাজনৈতিক হিংসা, বিজেপিকর্মীর চোখ খুবলে নেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

এবার বিশ্বভারতীর বিরুদ্ধে নিজেই মুখ খুললেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ। বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে নিশানা করে তিনি বলেন, শান্তিনিকেতনের সংস্কৃতির সঙ্গে উনার আচরনের অনেক পার্থক্য রয়েছে। উনি এই সংস্কৃতির সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নেননি। দিল্লির সরকারের পছন্দে এই পদে বসে ক্ষমতা জাহির করছেন উপাচার্য। 

আরও পড়ুন-বাড়ি নিয়ে অর্মত্য সেনের সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য, ব্রাত্য বসুর আহ্বানে প্রতিবাদে সুশীল সমাজ

প্রসঙ্গত, শান্তিনিকেতনে ১৩৮ ডেসিমেল জমির উপর, প্রতিচী নামে একটি বাড়ি তৈরি করেছিলেন অর্মত্য সেনের দাদু, বিখ্যাত শিক্ষাবীদ ক্ষিতিমোহন সেন। রবীন্দ্রনাথের আমলেই সেই বাড়ি তৈরি হয়েছিল। বর্তমানে ওই জায়গা বিশ্বভারতীর বলে দাবি করেছে কর্তৃপক্ষ। এরপরই, সমালোচনার ঝড় ওঠে বিভিন্ন মহলে। নোবেলজয়ীর পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ও।