'মমতা-দিদির নজর স্রেফ ভাইপো কল্যাণে', সাগরের জনসভা থেকে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে মুখ্যমন্ত্রীকে ফের নিশানা করলেন অমিত শাহ। এদিন একই সময়ে এক জেলায় শাহ-র পাশপাশি মমতারও সভা। তাই বারবারই জয় শ্রীরাম স্লোগান বলে 'মমতার কান অবধি পৌছানো'র চেষ্টায় সকলকে আহ্বান করেন শাহ।

আরও পড়ুন, আজ ময়দানে মুখোমুখি ২, একইদিনে সাগরে শাহ-পৈলানে মমতার সভা, ক্ষুব্ধ BJP 

 

 


এদিন অমিত শাহ বরাবরের মতোই মমতাকে তোপ দাগেন। তোলেন আম্ফান-চাল চুরি প্রসঙ্গ। এদিন তিনি নাম নিয়েই বলেন, মমতা-দিদির নজর স্রেফ ভাইপো কল্যাণে। এরপর জয় শ্রীরাম স্লোগান প্রসঙ্গে তিনি বলেন এই গঙ্গাসাগর এলাকার মানুষ তথা বাংলার মানুষ ভয় পায় না বলে সমবেত জয় শ্রীরাম বলতে আহ্বান করেন। যেন স্লোগানের এই আওয়াজ মমতা দিদির কান অবধি পৌছয় উল্লেখ করেন তিনি। মূলত এই দৃশ্য উঠে আসছে নেতাজীর জন্মদিন উপলক্ষে ভিক্টোরিয়ায় বিজেপির সভায় মমতার সঙ্গে স্লোগান কাণ্ডের পর।  তিনি এদিন ফের বলেন মোদী সরকার একবার সুযোগ দেওয়া হোক। তাহলে ৫ বছরে সোনার বাংলা বানাবে বিজেপি। তবে তিনি মনে করান 'পরিবর্তন মানে ক্ষমতার বদল নয়'। ২৯৪ আসনেই তৃণমূলকে হারানোর প্রতিশ্রুতি নেন শাহ। উল্লেখ্য, বুধরাতে শুভেন্দু গাড়ির উপরে হামলা চলেছে। আক্রান্ত শঙ্কুদেব সহ শিবাজী। এবং বৃহস্পতিবার তাই জনসভা থেকে তিনি বলেন, ১৩০ বিজেপি কর্মী হত্যা করা হয়েছে বলে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন।

আরও পড়ুন, 'এখনও রাষ্ট্র ভক্তি-বাঁচার মনোভাব তৈরি করে ভারত সেবাশ্রম', বললেন শাহ 

 


 
বৃহস্পতিবার নিউটাউনের একটি পাঁচতারা হোটেলে বিএসএফ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করলেন অমিত শাহ।  বৈঠক সেরে তিনি বালিগঞ্জের ভারত সেবাসঙ্ঘে যান। এই আশ্রমে যাওয়ার আগেও যাওয়ার কথা ছিল শাহ-র। কিন্তু সফর বাতিল হতেই স্থগিত রাখতে বাধ্য হন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর সরাসরি আরসিটিসি থেকে হেলিকপ্টারে গঙ্গাসাগর পৌছন শাহ। বৃহস্পতিবারই রাজ্য বিজেপির পঞ্চম তথা শেষ পরিবর্তন যাত্রার সূচনা  শাহ হাত ধরেই। সেখান থেকে মধ্যাহ্নভোজ করবেন নারায়ানপুরের এক উদ্বাস্তু পরিবারে। এরপর কাকদীপে রোড শোড শো রয়েছে শাহ-র এবং যাবেন একটি শ্মশান কালী মন্দিরেও। শুক্রবারও বাংলায় থাকছেন তিনি। তবে শুক্রবারের কর্মসূচি নিয়ে এখনও কিছু জানানো হয়নি।