ভোটের আগে তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে রাজনৈতিক আক্রমণ। শান্তিনিকেতনে অমিত শাহর সভার পরই নিজের স্বভঙ্গিমায় ফিরেছেন অনুব্রত মণ্ডল। শুক্রবার বর্ধমানের কেতুগ্রামে জনসভা থেকে বিজেপি ও কেন্দ্রীয় সরকার তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন অনুব্রত।'' আগামী বিধানসভা নির্বাচনে শাসকদল ২২০টি আসন পাবে। তা না হলে রাজনীতি ছেড়ে দেব''। কেতুগ্রামের সভা থেকে হুঙ্কার দিলেন অনুব্রত মণ্ডল।

আরও পড়ুন-'সিঙ্গুরে শিল্প অনেকটা বলদে দুধ দেওয়ার মত, ঘোড়াতেও হাঁসবে', মমতাকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

শুক্রবার ক্রিসমাসের দিনে পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামে সভা করেছিলেন বীরভূম তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সেখান থেকেই বিজেপি একের পর এক আক্রমণ করেন তিনি। বিজেপির সোনার বাংলা তৈরির প্রতিশ্রুতিকে কটাক্ষ করে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ''এ রাজ্যে বিজেপি সোনার বাংলা তৈরি করতে চায়, তাহলে সোনার ভারত তৈরি হল না কেন?  কেন এভাবে বিপর্যয়ের মুখে পড়তে হচ্ছে সাধারণ কৃষক থেকে সাধারণ মানুষকে''। কেন্দ্রীয় সরকারকে তোপ দিয়ে একথা বলেন অনুব্রত মণ্ডল।

আরও পড়ুন-কৃষি আইন নিয়ে মোদীর নিশানায় বাংলা, প্রধানমন্ত্রীর কটাক্ষের জবাব দিলেন তৃণমূলের সৌগত রায়

পাশাপাশি, বিজেপি হুঁশিয়ারি দিয়ে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ''প্রয়োজনে রক্তবন্যা বইবে। কিন্তু বাংলায় এনআরসি হতে দেব না। বিজেপি মিথ্যেবাদী বেইমানের দল। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল ২২০টা আসন পাবে। যদি তা না হয়, রাজনীতি ছেড়ে দেব। বিজেপিকে হুঙ্কার দিয়ে বললেন অনুব্রত মণ্ডল''। অন্যদিকে, এদিনের সভা থেকে শাসকদল তৃণমূলের উন্নয়নমূলক কাজের খতিয়ান তুলে ধরেন অনুব্রত। স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি।