কৃষি আইনের বিরোধিতার জন্য বড়দিনের সকালে ট্যুইট করেছিলেন রাজ্য বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত পর্যবেক্ষক অমিত মালব্য। ''পিসির ইগোর কারনে রাজ্যের কৃষকরা বঞ্চিত'', বলে তৃণমূলকে কটাক্ষ করেছিলেন তিনি। এর পাশাপাশি, কৃষকদের নিয়ে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে তৃণমূলকে নিশানা করেছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দিল্লির সীমান্তে কৃষকদের আন্দোলনকে তৃণমূলের সমর্থনের সমালোচনা করেন। এই সমালোচনার পাল্টা জবাব দিলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান সাংসদ সৌগত রায়।

আরও পড়ুন-'কৃষিক্ষেত্রে উন্নয়ন বিজেপির হাত ধরেই, কৃষকদের ভুল বোঝাচ্ছেন বিরোধী', কৃষিনীতির পক্ষে সওয়াল মোদীর

প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্স বৈঠক শেষ হওয়ার পরই সাংবাদিক সম্মেলনে সৌগত বসু বলেন, ''রাজ্যের কৃষকদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দাবি সম্পূর্ণ মিথ্যা। কৃষকদের জন্য টাকা রাজ্যের মাধ্যমে দিতে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে''। প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ''রাজ্য টাকা দেবে, আর কেন্দ্র তার থেকে সুবিধা নেবে। ফসল ফলানোর আগেই ঠিক হয়ে যাবে ফসলের দাম। বাজারে ফসলের দাম বাড়লে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন কৃষকরা। পুঁজিবাদীরা আগের দামে ফসল কিনে চলে যাবে। সরাসরি কৃষকদের টাকা কেন দেওয়া হবে''। 

আরও পড়ুন-দিনে-দুপুরে সবজি ব্যবসায়ীর থেকে লক্ষাধিক টাকা লুঠ, সিসিটিভিতে ধরা পড়ল চাঞ্চল্যকর ছবি

শুক্রবার ভিডিও কনফারেন্স বৈঠক থেকে ৯ কোটি কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্য়াকাউন্টে দ্বিতীয় কিস্তির আঠারো হাজার কোটি টাকা পাঠান প্রধানমন্ত্রী। প্রত্যেকের অ্য়াকাউন্টে ৬ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক কারনে বাংলা এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত বলে দাবি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। জবাবে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ''৬ হাজার টাকা দিয়ে এমন ভাব করছে, যেমন ৬ লক্ষ টাকা দেওয়া হচ্ছে। বাংলার কৃষকরা রাজ্য সরকারের থেকে অনেক বেশি টাকা পায়''। মন্তব্য করেন সৌগত বসু।