রাজনীতি থেকে অবসর চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে মন্ত্রিত্ব ছেড়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর পদ ছেড়ে বর্তমানে তিনি বিধায়ক হিসেবেই থাকবেন। এই মর্মে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বলেন, ''লক্ষ্মীর সঙ্গে দলের কোনও সমস্য়া নেই। ও খেলাধূলা নিয়েই থাকতে চাই''।

আরও পড়ুন-আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতার জন্মদিন, ভবঘুরেরা খেলেন চিলি চিকেন, ফ্রায়েড রাইস

অন্যদিকে, লক্ষ্মীর দল বদলের পরই, তাঁকে নাম না করে তীব্র কটাক্ষ করলেন বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। "দেখবেন কখনও কখনও ভেড়ার পাল কোন কৃষকের গোয়ালে ঢোকে। আবার উৎসবের সময় ৩০ টা বেরিয়ে যায়। তাতে মালিকেরই বা কি, গোয়ালেরই বা কি"। মঙ্গলবার লক্ষ্মীরতন শুক্লার দলত্যাগের জল্পনাকে কটাক্ষ করে এ কথা বলেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

আরও পড়ুন-৯ জানুয়ারি ফের রাজ্যে জেপি নাড্ডা, বর্ধমান সফরে গিয়ে কৃষক পরিবারে মধ্যাহ্নভোজ করবেন

মঙ্গলবার বিকেলে মুরারই ১ নম্বর ব্লকের পলসা কারবালা মাঠে তৃণমূলের জনসভায় প্রধান বক্তা ছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। বক্তব্যের শুরুতে তিনি বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণাত্বক ছিলেন। তিনি বলেন, "মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় রাজ্যে ৬৮ টি প্রকল্প চালু করেছে। দিদি বাংলায় না থাকলে অন্ধকার নেমে আসবে। এঁরা বাংলাকে বিক্রি করে দেবে। বিজেপি বলুক ওরা ক্ষমতায় এলে প্রকল্প গুলো চালু রাখবে। তাই ভুল করবেন না। আমরা ভুল করলে বড় ভুল হয়ে যাবে। আমরা ২২০ থেকে ২৩০ আসন পাব। না পেলে দল ছেড়ে দেব"।