বাংলার কৃষকদের মন জয়ের লক্ষ্যে শনিবার বর্ধমানে কৃষক সুরক্ষা অভিযান কর্মসূচি নিয়েছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। কাটোয়ায় সভার পর বর্ধমান শহরে পদযাত্রা করেন তিনি। নাড্ডার শক্তি প্রদর্শনের পর এবার বর্ধমান শহরে মিছিল ও পদযাত্রা তৃণমূলের। সেই পদযাত্রা শুরুর আগেই তৃণমূলের পার্টি অফিসে হামলার অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয় যে, সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় শক্তিগড় থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন-বেসরকারি হাসপাতালেও 'স্বাস্থ্যসাথী'র আলাদা কাউন্টার, মুখ্যসচিবের সঙ্গে বৈঠকের পর কাটছে জট

জানাগেছে, রবিবার সকালে তাঁদের পদযাত্রা ও মিছিল নিয়ে প্রচার করছিল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই সময় শক্তিগড় থানা এলাকার বামচাঁদাইপুরে তৃণমূলের অফিসে বিজেপি হামলা চালায় বলে অভিযোগ। তৃণমূলকর্মীদের মারধর করে পার্টি অফিসে ব্য়াপক চাালনো হয়। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। এক নেতা বলেন, গতকাল ওঁরা বহিরাগতদের নিয়ে মিছিল করেছিল। আমরা আপত্তি করিনি। এখন ওঁরা আমাদের মিছিলে বাধা দিচ্ছে।

আরও পড়ুন-হোমের কিশোরীকে সেফটিপিন ফুটিয়ে অত্যাচার, মিথ্যাচারের অভিযোগে মমতাকে তোপ অগ্নিমিত্রার

অন্যদিকে, বিজেপির পাল্টা অভিযোগ, তৃণমূলের মিছিলে যোগ দেওয়ার জন্য বিজেপিকর্মীদের উপর চাপ দেওয়া হচ্ছিল। সেখান থেকেই বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। তৃণমূলের মারে বিকাশ মণ্ডল ও রতন দাস নামে দুই বিজেপিকর্মী গুরুতর জখম হয়েছেন বলেও দাবি বিজেপির। দুই পক্ষের সংঘর্ষের জেরে পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয় যে, ঘটনাস্থলে পৌঁছায় শক্তিগড় থানার বিসাল পুলিশ বাহিনী। বেশ কিছুক্ষণ পর ওই এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।