'ডিসেম্বর মাসটা পশ্চিম বাংলার রাজনীতিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক মাস হিসেবে লেখা থাকবে',ভবিষ্যতবাণী করলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বৃহস্পতিবার সকালে বিধাননগর পুর নিগমের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের মহিষবাথানে চা চক্রে আসেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

আরও পড়ুন, 'এতদিন কোথায় ছিলেন', জিতেন্দ্রের প্রশংসায় দিলীপ-বাবুল, জল কোন দিকে

 

 

আরও পড়ুন, একুশে জুটবে কি ১০০ আসন তৃণমূলের, ভবিষ্যতবাণী মুকুল রায়ের

 

 'অধিকারী বাবু' 

 শুভেন্দু অধিকারী নিয়ে তিনি বলেন, 'অধিকারী বাবু এখনও টিএমসির মেম্বার আছেন। উনি পার্টি ছাড়ছেন বোঝা যাচ্ছে। কিন্তু বিজেপিতে জয়েন করছেন বা করবেন সেটা এখনও নিশ্চিত নয়। আমার সঙ্গে কথা হয়নি। আমরা দরজা খুলে রেখেছি। তার মতো লড়াকু নেতাকে লাগবে বাংলার পরিবর্তন করার জন্য উন্নয়নের জন্য। 'বিজেপিকে চম্বলের ডাকাত' বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, 'কে ডাকাত তা পশ্চিমবঙ্গের লোক বুঝে গেছেন। উনি ডাকাতি লুট করে পশ্চিমবঙ্গকে ভিখারি করে দিয়েছেন। তাই সাধারণ মানুষ তার জবাব দেবেন। উনি সার্টিফিকেট দিলে মানবেন না সবাই। উনি বলতেন টিএমসি পবিত্র। ভালো। তা টিএমসি ছেড়ে নেতা মন্ত্রী এমএলএ এমপিরা ছেড়ে চলে যাচ্ছেন কেন। দিদিমণি আজকাল কী বলছেন তার মাথামুন্ডু নেই।'

 'ভোটের আগে বিজেপির চমক'


 'ভোটের আগে বিজেপি চমক দিচ্ছে', পার্থ চট্টোপাধ্য়ায়ের এই কথার উত্তরে দিলীপ ঘোষ বলেন, নির্বাচনের আগেও হবে। নির্বাচনের পরেও হবে। চমক দেখতে থাকুন। ওনাদের দিন শেষ এখন দেখার দিন। নিজেদের লোককে যদি আটকে রাখতে না পারেন। অন্যদের দোষ দিয়ে কী হবে। পুরভোট করা নিয়ে উনি বলেন, ভোট ওরা করবেন না। কোর্ট বলেছে তাই বলতে হয় বলছেন। ভোট করার হলে দেড় বছর ধরে পুরসভা গুলোর ভোট করছেন না কেন। মানুষ কেন পরিষেবা পাচ্ছেন না। আমরা চাই ভোট হোক। পশ্চিমবঙ্গের সব কটি মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনগুলোর ভোট হোক। আমরা প্রস্তুত আছি।'

 

আরও পড়ুন, ভোট প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে কলকাতায় উপনির্বাচন কমিশনার, একুশের আগে ৫ দিনের সফরে সুদীপ জৈন

 

 

'ডিসেম্বর মাসটা ইতিহাসে লেখা থাকবে'


অপরদিকে, ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে শুভেন্দু, জিতেন্দ্র প্রসঙ্গ উঠতেই বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন, 'বিজেপি সবকিছুতে এখন চমক তবে আমাদের থেকে বেশি চমক এখন টিএমসি তে রোজ সকালে শুনতে হচ্ছে ও চলে গেল ও চলে গেল ব্যবহারকে জনতা পার্টি একটা প্ল্যান করে যোজনা তৈরি করে এগোচ্ছে তার ফল বিভিন্ন নির্বাচনে আপনারা দেখেছেন আমাদের সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা করা হয় তবে যোগদানের সংখ্যাতত্ত্বের বিচারে তিনি গেলেন না। শুধু একটি ভবিষ্যৎবাণী করেছি ডিসেম্বর মাসটা পশ্চিমবাংলার রাজনীতিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক মাস হিসেবে লেখা থাকবে। শুভেন্দু, জিতেন্দ্র তিওয়ারি বৈঠক নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন সিএম এর চাইতে কেউ কেউ শুভেন্দু অধিকারী কে বড় নেতা বলছেন তাকে বেশি বিশ্বাসযোগ্য মনে হচ্ছে।'