তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ের ভিতরেই বোমা বিস্ফোরণ। গুরুতর আহত তৃণমূলের তিন কর্মী। শুক্রবার প্রথম দফা নির্বাচনের ঠিক আগেই কেঁপে উঠল বাঁকুড়া জেলার জয়পুর। আর এই বিস্ফোরণের পরই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের দোষারোপ-পাল্টা দোষারোপের খেলা শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন - মুখ্যমন্ত্রীর দৌড়ে বেশি পিছিয়ে নেই দিলীপ, কে পাবে বাংলার তাজ - কী বলছে জনমত সমীক্ষা

আরও পড়ুন - বঙ্গ ভোটে পদ্ম হাতে ৯ মুসলমান, বিজেপি কি সত্যিই সংখ্যালঘু-বিরোধী - কী বলছেন প্রার্থীরা

আরও পড়ুন - মমতা, আব্বাস না বিজেপি - কোথায় যাবে মুসলিম ভোট, বাংলার নির্বাচনে এবার সবথেকে বড় ধাঁধা

তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ, এই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে কংগ্রেস-বাম-আইএসএফ জোট। অন্যদিকে, বিজেপি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে দাবি করেছে, তৃণমূলের কর্মীরাই পার্টি অফিসের ভিতর বোমা তৈরি করছিলেন। সেই সময়ই বিস্ফোরণ ঘটেছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটটা জয়পুরের পরিস্থিতি উত্তাল। জায়গায় জায়গায় তৃণমূল ও বিজেপির কর্মীদের মধ্যে হিংসা ও সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় এলাকায় ব্যাপক সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এই ঘটনার নিন্দা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর-ও। তিনি এই ঘটনায় বেদনার্ত এবং দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। টুইট করে তিনি জানিয়েছেন, এই হিংসার ঘটনায় তিনি কষ্ট পেয়েছেন। কলকাতা পুলিশ ও পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের ওসি এবং আইসিদের তিনি আইন অনুযায়ী সব ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের পুলিশ ও প্রশাসনের রাজনৈতিক নিরপেক্ষতা নিয়ে কাজ করা উচিত এবং আইনের শাসনের প্রতি আনুগত্য দেখানো উচিত। যারা মানবেন না তাঁদের শাস্তি হবেই, বলে সতর্কও করেছেন তিনি।