Asianet News BanglaAsianet News Bangla

পঞ্চম দফাতেও চলল গুলি - অভিযোগ সেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে, উত্তেজনা দেগঙ্গায়

চতুর্থ দফার পর ফের গুলি চলল পঞ্চম দফায়

অভিযোগে আঙুল সেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর দিকে

ঘটনাস্থল দেগঙ্গার কুড়ুলগাছা গ্ৰাম

বাহিনীর পক্ষ থেকে অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে

 

Central force fire shots in air at Deganga, alleges ISF ALB
Author
Kolkata, First Published Apr 17, 2021, 2:20 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

চতুর্থ দফার পর পঞ্চম দফাতেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে বিনা প্ররোচনায় গুলি চালানোর অভিযোগ উঠল। কোচবিহারের শীতলকুচির পর এবার ঘটনাস্থল দেগঙ্গার কুড়ুলগাছা গ্ৰাম। এমনটাই অভিযোগ গ্রামবাসী এবং আইএসএফ-এর তরফে। তবে, বাহিনীর পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। যদিও এই ঘটনায় হতাহতের কোনো খবর নেই। ঘনার বিষয়ে রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।

ঘটনাস্থল চাকলা পঞ্চায়েতের অন্তর্গত কুড়ুলগাছা গ্ৰামের ২১৫ নং বুথ । স্থানীয় গ্রামবাসীদের অভিযোগ, একেবারে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট চলছিল সেখানে। প্রচন্ড গরম বলে বুথের বাইরে এক জায়গায় গাছের ছায়া দেকে বেশ কয়েকজন ভোটার সেখানে ছায়ায় শুয়ে-বসে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। সবমিলিয়ে মাত্র ৮-৯ জন ব্যক্তি সেখানে ছিলেন। সেইসময়ই কেন্দ্রীয় বাহিনীর একটি গাড়ি আসে। জওয়ানরা গাড়ি থেকে নেমেই শূন্যে এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে বলে অভিযোগ। সেইসঙ্গে গ্রামবাসীদের উপর লাঠিচার্জ-ও করা হয়। ধানখেতের মধ্য দিয়ে পালাতে গিয়ে সামান্য আহতও হন কয়েকজন গ্রামবাসী।

তবে গুলির চালানো হলেও, গুলির কোনও খোল পাওয়া যায়নি। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনীই ওই গুলির খোল তুলে নিয়ে চলে যায়। গ্রামের এক জায়গায় মাটিতে একটি ছোট গর্ত রয়েছে। গ্রামবাসীদের দাবি, ওই গর্তের জায়গাটিতেই গুলির খোলটি পড়েছিল।

আরও পড়ুন - 'এবার, ২০০ আসন পার' - একান্ত সাক্ষাতকারে কী জানালেন স্বপন দাশগুপ্ত

আরও পড়ুন - সংগঠন থেকে প্রচার, আরএসএস-ই গড়ে দিয়েছে বিজেপির জয়ের ভিত

আরও পড়ুন - শহুরে ভোট ধরতে কৌশল বদল, কোন হাতিয়ারে শিক্ষিত বাঙালীর মন জিততে চাইছে বিজেপি

তবে কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। ওই এলাকায় নিযুক্ত বাহিনীর দওয়ানরা দাবি করেছেন, কোনও গুলিই সেখানে চলেনি। ওই বুথে একেবারে শান্তিতে ভোট হচ্ছে। তাঁরা কোনও গুলি চালানোর শব্দও পাননি। তবে, বিষয়টি সহজভাবে দেখছে না নির্বাচন কমিশন। শীতলকুচির ঘটনার পর কমিশন এমনিতেই চাপে। তাই, দেগঙ্গার কুরুলগাছা গ্রামের এই ঘটনার ক্ষেত্রে ঠিক কী ঘটেছে, তা জানতে চেয়েছে কমিশন।

 

 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios