বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের আগে নতুন করে উত্তপ্ত হচ্ছে নন্দীগ্রাম। সামান্য গ্রাম্য বিবাদকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হল জমি আন্দোলনের প্রাণ কেন্দ্রে। রবিবার গভীর রাতে উত্তেজনার জেরে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায় তৃণমূল-বিজেপি। দুই পক্ষের সংঘর্ষের জেরে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয় গোটা এলাকায়। সংঘর্ষের জেরে দুই বিজেপি কর্মী জখম ও এক জনের দোকানে ভাঙচুর চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে তমলুকে এসপি অফিস ঘেরাও করলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

আরও পড়ুন-'ট্রেন ছেড়ে দেবে, তাড়াতাড়ি যান, কিন্তু আর দলে ফিরাবো না', তৃণমূলের দলত্যাগীদের কড়া বার্তা মমতার

সোমবার বিকেলে তমলুকে নন্দীগ্রামের শুভেন্দু অধিকারীর সভা ও বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে পূর্ব নির্ধারিত এসপি অফিস ঘেরাও কর্মসূচি ছিল। ঠিক তার আগের দিন রাতেই উত্তপ্ত হয় ওঠে নন্দীগ্রাম। মহম্মদপুর এলাকা গ্রাম্য বিবাদের জেরে রাজনৈতিক আকার নেয়। জানাগেছে, ওই এলাকায় একটি গন্ডগোলের জেরে এক বিজেপি কর্মীর দোকানে ভাঙচুর চালানো হয়। সেখান থেকেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়। বিজেপি কর্মীদের বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। হামলার অভিযোগ ওঠে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। এরই পাল্টা মারধর করে বিজেপি কর্মীরাও। তৃণমূল সমর্থকদের বাড়ি ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার পর থেকেই সোমবার সকাল থেকে থমথমে পরিস্থিতি তৈরি হয় গোটা এলাকায়।

আরও পড়ুন-'নেতাজী-বাংলাকে অপমান করেছো, রাজনীতিতে আমি এর প্রত্যুত্তর নেব', ভিক্টোরিয়ার ঘটনায় সরব মমতা

শুভেন্দুকে জবাব দিতে নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রে আসন্ন নির্বাচনে নিজেকে ভোটপ্রার্থী ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। সেখানে তাঁর প্রতিপক্ষ তৃণমূল থেকে দলত্যাগী বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। এর আগে নন্দীগ্রামে একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন শুভেন্দু ঘনীষ্ঠ নেতা কনিষ্ক পাণ্ডা। শুধু তাই নয়, নন্দীগ্রামের তেখালিতে শুভেন্দুর সভার আগে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ ওঠে। এবার গ্রাম্য বিবাদকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়াল তৃণমূল-বিজেপি।