'ব্যর্থতার দায় শীর্ষনেতৃত্বের', দলের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে কথা বলার অপরাধে তন্ময় ভট্টাচার্যের মুখ বন্ধ করল এবার সিপিএম। এদিকে ভোট বিপর্যয়ের কারণ খুঁজতে বসে  পাল্টা দোষারোপে আটকে থাকল আলিমুদ্দিন। জেলা নের্তৃত্বের তোপের মুখে কমরেডকুলের শীর্ষ নের্তৃত্ব।

আরও পড়ুন, কেন্দ্রের তলব সত্ত্বেও সোমবার সম্ভবত দিল্লি যাচ্ছেন না আলাপন, থাকবেন মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকে 

 

 

আগামী তিন মাস দলের তরফে কোনও বক্তব্য রাখতে পারবেন না উত্তর দমদম কেন্দ্রের প্রাক্তণ বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য। সিপিএমের হয়ে প্রকাশ্যে দলের বিরুদ্ধে মুখ খোলা যায় না। দলের নিয়ম নীতির যুক্তি দিয়ে তাই এবার তন্ময় ভট্টাচার্যের মুখ বন্ধ করল এবার সিপিএম। প্রসঙ্গত, শনিবার ভোটের ফলাফল পর্যালোচনার জন্য ভার্চুয়ালি বৈঠকে বসেছিল সিপিএমের রাজ্য কমিটি। সেখানেই ঠিক হয়, প্রকাশ্যে দলের বিরুদ্ধে মুখ খোলার জন্য  তন্ময় ভট্টাচার্যকে শাস্তি পেতে হবে। মূলত, দলের কথা অনুযায়ী তন্ময়ের অপরাধ ছিল একুশের নির্বাচনে দলের ভরাডুবি নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলা। তন্ময় আসলে প্রকাশ্যে বলেছিলেন, দলের এই ব্যর্থতার দায় সিপিএমের শীর্ষ নের্তৃত্বের। আমাদের মতো নিচুতলার কর্মীদের নয়। এটা স্ট্যালিনের যুগ নয়। শুধু স্ট্য়ালিন আওড়ালে হবে না। লোকসভা শূন্য হয়ে যাওয়ার পরেও সেই দায় কেউ নেননি। বিধানসভায় হারের পরেও কেউ দায় নেবেন না। সেটা হতে পারে না।'

 

 

আরও পড়ুন, CBI সেজে ব্যবসায়ীকে অপহরণ, পুলিশের জালে আরও এক পান্ডা 

এরপরেই ঘটনার মোড় ঘোরে। উত্তর দমদম কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্যের এই বক্তব্য়ে কার্যত কেঁপে ওঠে সিপিএমের অন্দর। অনেকেই দলের শীর্ষনেতার বিরুদ্ধে মুখ খোলেন। আর তার কারণেই তন্ময়কে এবার শাস্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিপিএম রাজ্য কমিটি।