তাপস দাশঃ- মধ্য হাওড়ার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী অরূপ রায় পেশায় আইনজীবী। তাঁর বয়স ৬৫ বছর। তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ৩ কোটি টাকারও বেশি। এ হিসেব তাঁর দাখিল করা হলফনামা অনুসারে প্রাপ্ত। অরূপ রায় ও তাঁর স্ত্রী যৌথভাবে ২ কোটি ২৬ লক্ষ ১১ হাজার ২৮৭ টাকা মূল্যের স্থাবর সম্পত্তির মালিক।

আরও পড়ুন, বাংলা জয়ের লক্ষ্যে এবার টানাটানি 'হিন্দু-ভোটে', BJP-র সৌজন্য়েই বদলাল ছবি 

 

 


এ অবশ্য তাঁর ও তাঁর স্ত্রীর যৌথ সম্পত্তির হিসেব। দুজনের হাতে মোট নগদের পরিমাণ ৮৮ হাজার ৩৫ টাকা। তাঁর ও তাঁর স্ত্রীর ব্যাঙ্ক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে গচ্ছিত আমানতের পরিমাণ ১ কোটি ৫৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৭৯২ টাকা। বিভিন্ন সংস্থার শেয়ার, বন্ড প্রভৃতিতে দুজনের মোট গচ্ছিতের পরিমাণ ২২ লক্ষ ৫৩ হাজার ৮৭২ টাকুা। দুজনের মিলিত জীবন বিমার পরিমাণ ১ লক্ষ ৩৯ হাজার ৫৪৫ টাকা। অরূপ রায়ের নিজের কোনও গাড়ি নেই, তাঁর স্ত্রীর একটি মারুতি বিতারা ব্রিজা গাড়ি রয়েছে, যার মূল্য ৯ লক্ষ টাকা। 

আরও পড়ুন,'তপনকে ক্ষমা করে দিয়ে ভোটটা দেবেন তো' জনসভায় এসে চরম শঙ্কায় মমতা  

 

 

অরূপ রায়ের কাছে যে সোনার রয়েছে, তার দাম তাঁর স্ত্রীর কাছে যে সোনা রয়েছে তার তুলনায় বেশি, এমনটাই হলফনামায় জানিয়েছেন তিনি। তাঁর ৪০০ গ্রামের সোনার আংটি রয়েছে, যার দাম সাড়ে ১৮ লক্ষ টাকা। আর অরূপের স্ত্রীর কাছে যে সোনা রয়েছে তার দাম ১৫ লক্ষের কিছু বেশি। দুজনের কাছে মিলিত সোনার পরিমাণের অর্থমূল্য ৩৩ লক্ষ ৮০ হাজার ৪৩ টাকা। অরূপ রায় ও তাঁর স্ত্রী যৌথভাবে ২ কোটি ২৬ লক্ষ ১১ হাজার ২৮৭ টাকা মূল্যের স্থাবর সম্পত্তির মালিক।

আরও দেখুন, Election Live Update- শহরে রোড শোয়ে নাড্ডা, TMC-র হয়ে পাল্টা জয়াও, ওদিকে উত্তরপাড়ার জনসভায় মমতা  

 

এ ছাড়া অস্থাবর সম্পত্তিও রয়েছে। অরূপের ০.৯৭ একর কৃষিজমি রয়েছে যার মূল্য ৬২ লক্ষ ৯৩ হাজার ৩৯০ টাকা। একটি বাড়ি রয়েছে অরূপ রায়ের, হাওড়ার ধর্মতলা লেনে। ১৭০০ বর্গফুটের সে বাড়ি ৮৭ সালে ৬৫ হাজার টাকায় কিনেছিলেন অরূপ। এখন তার বাজারমূল্য, অরূপের হলফনামা অনুসারে ১৩ লক্ষ ৮১ হাজার ২৫০ টাকা। মোট স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৭৬ লক্ষ ৭৪ হাজার ৬৪০ টাকা।  দায় বলতে অরূপ দেখিয়েছেন, তাঁর স্ত্রীর স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া থেকে নেওয়া গাড়ির লোন, যার পরিমাণ ৬ লক্ষ ৭৮ হাজার ৮২৭ টাকা। অন্যান্য দায়ের পরিমাণ ২২ লক্ষ ৮২ হাজার ৯৭৪ টাকা। 

 

আরও পড়ুন, নিজের আখের গোছাতে সিঙ্গুরকে ব্যবহার, মমতা-র দিকে আঙুল তুললেন লকেট