''দুর্নীতিতে অভিযুক্তরা তৃণমূলে টিকিট পাবে না বলে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাচ্ছেন। ওয়াশিং মেশিন বিজেপিতে গিয়ে সাফ হয়ে আসছেন''। দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ বারবার করেছেন মমতা। এবার সদ্য দলত্যাগী রাজীব বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বন সহায়ক নিয়োগে রাজীব দুর্নীতি করেছেন বলে অভিযোগ করলেন মমতা। এ নিয়ে রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন-'রথযাত্রা ঘিরে আইনশৃঙ্খলার অবনতি আশঙ্কা', বিজেপির 'পরিবর্তন যাত্রা'বাতিলের দাবিতে মামলা

বুধবার আলিপুরদুয়ারের প্যারেড গ্রাউন্ডে তৃণমূলের কর্মিসভায় যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখান থেকেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলেন মমতা। কর্মিসভা থেকে তিনি বলেন, ''বন সহায়ক পদে প্রকৃত চাকরির দাবিদার কেউ বঞ্চিত হলে পুনর্বিবেচনা করা হবে''। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি, উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বন সহায়ক পদে নিয়োগ করা হয়েছে। নিয়োগের সেই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, বনবস্তির বাসিন্দাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। এমনকি, যাঁরা বনজঙ্গল রক্ষায় কাজ করছেন, তাঁরাও এই সুবিধা পাবেন। কিন্তু সেই নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন-'আগামী ৭-৮দিনের মধ্যে ভোটের দিন ঘোষণা হবে', নির্বাচনী জনসভায় বললেন মুখ্যমন্ত্রী

দিল্লি উড়ে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন তৃণমূলের একাধিক বিধায়ক মন্ত্রী। সেই তালিকায় রয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্য়ায়, প্রবীর ঘোষাল, বৈশালী ডালমিয়া, রথীন চক্রবর্তী সহ রুদ্রনীল ঘোষ। তারপরই, প্রথমবার রাজনৈতিক জনসভায় যোগ দিয়ে দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে সরব হলেন মমতা। রাজীবদের দিল্লি নিয়ে যেতে বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। পরিযায়ী শ্রমিকদের কেন্দ্র ট্রেন না দিয়ে দুর্নীগ্রস্তদের বিমান দিয়েছে বলে আলিপুরদুয়ারের জনসভা থেকে বিজেপিকে কটাক্ষ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।