হিন্দু ধর্মকে অপমান করেছেন। হিন্দুদের ভাবাবেগে আঘাত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উসকানি মূলক বক্তৃতা দিয়েছেন, যা থেকে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধতে পারে। বৃহস্পতিবার, তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে এমনই গুরুতর অভিযোগ জানালো বিজেপি।

এদিন রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে অর্জুন সিং এবং শিশির বাজোরিয়া রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সদর দফতরে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি বক্তৃতার ভিডিও ক্লিপ জমা দেন। বুধবারই মেদিনীপুরের সভাতেও অন্যান্য সব প্রচারসভার মতোই মমতা বহিরাগত গুন্ডাদের প্রতিহত করার আহ্বান জানিয়েছেন। তবে সেইসঙ্গে সেই বহিরাগতদের বর্ণনাও দেন। বলেছিলেন তাঁদের গায়ে গেরুয়া রঙের বস্ত্র থাকবে, আর কপালে থাকবে টিকা।

এদিন, সেই বক্তৃতার ভিডিও ক্লিপ জমা দিয়ে বিজেপি নেতা শিশির বাজোরিয়া বলেন, এই বর্ণনা থেকে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় সরাসরি হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদেরই ইঙ্গিত করেছেন। হিন্দুদের বিরুদ্ধে তৃণমূল নেত্রী উসকানি মূলক প্রচার করছেন বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের। এমনকী এর থেকে আগামী দিনে রাজ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগার মতো পরিস্থিতিও তৈরী হতে পরে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন শিশির বাজোরিয়া।

আরও পড়ুন - 'ভাইপো'র জন্যই কি ডুবছে তৃণমূল, নাকি আসন্ন নির্বাচনে তিনিই 'দিদি'র অক্সিজেন

আরও পড়ুন - বঙ্গ ভোটে পদ্ম হাতে ৯ মুসলমান, বিজেপি কি সত্যিই সংখ্যালঘু-বিরোধী - কী বলছেন প্রার্থীরা

আরও পড়ুন - মমতা, আব্বাস না বিজেপি - কোথায় যাবে মুসলিম ভোট, বাংলার নির্বাচনে এবার সবথেকে বড় ধাঁধা

এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে, মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়কে সবরকম প্রচার কর্মসূচী থেকে নিষিদ্ধ করার এবং উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি জানিয়েছে বিজেপি। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ওই মন্তব্যে শুধু নির্বাচনী বিধিভঙ্গ নয়, ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারাও লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ পদ্ম শিবিরের। এই বিষয়য়টিকে তারা অত্যন্ত গুরুতর বলে মনে করছে। এই নিয়ে নয়াদিল্লিতে ভারতের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের কাছে আলাদা করে অভিযোগ জানানো হবে, বলেও জানিয়েছেন শিশির বাজোরিয়া।