পুরুলিয়ার জনসভা থেকে রাজ্যে হিন্দু-মুসলিম বিভেদ না করার বার্তা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন এই রাজ্যে হিন্দু মুসলিম ভাগাভাগি করা যাবে না। কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন 'আমি ব্রাহ্মণ ঘরের মেয়ে। আমার সঙ্গে রাতে ঘুমায় বাউরি ঘরের মেয়ে। কারণে আমি সেই মেয়েকে ভালোবাসি।' তিনি আরও বলেন আমরা সবাই এক।

এদিন পুরুলিয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তিনটি নির্বাচনী জনসভা রয়েছে। প্রথম সভাটি ছিল পারা বিধানসভা কেন্দ্রে। দ্বিতীয় সভাটি কাশীপুর ও তৃতীয় সভা রঘুনাথপুর বিধানসভা কেন্দ্রে। প্রথম সভা থেকেই মমতা টার্গেট করেন বিজেপিকে। কারণ লোকসভা ভোটের নিরিখে পুরুলিয়াসগহ জঙ্গলমহল এলাকায় অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। তুলনায় পিছিয়ে পড়ছে তৃণমূল। প্রথম দফা নির্বাচনে জঙ্গলমহলের অধিকাংশ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ হবে। আর ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে রীতিমত তৎপর তৃণমূল সুপ্রিমো। এদিন সভা থেকে তিনি বলেন রাজ্যের একাধিক উন্নয়নমূলক প্রকল্পের সঙ্গে তৃণমূলের জমানায় উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরে বলেন, রুক্ষ পুরুলিয়ায় জলপ্রকল্প তৈরি হয়েছে তাঁরই উদ্যোগে। প্রতিবেশী রাজ্য ঝাড়খণ্ডের প্রসঙ্গ টেনে এনে তিনি বলেন, জামসেদপুরে বিজেপি সরকার আদিবাসীদের কাছ থেকে জমি ছিনিয়ে নিয়েছে। তবে তৃণমূল সরকার আদিবাসীদের ভূমির অধিকার পুনরুদ্ধার করেছে। 

এদিনের জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন পুরুলিয়ায় ৭২ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। গুরুত্ব দেওয়া হবে পর্যটন শিল্পে। তৃণমূল কংগ্রেস যদি নীলবাড়ির দখল আরও একবার নিতে পারে তাহলে বছর চার মাস দুয়ারে সরকার প্রকল্প চালু করা হবে। একই সঙ্গে তিনি বলেন আগামী দিনে ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে মাটি সৃষ্টি প্রকল্প হবে। জলস্বপ্ন প্রকল্পের মাধ্যমে পাণীয় জল ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। 

মনে আছে নন্দীগ্রামের বাম বিধায়ক ইলিয়াসকে, বাবার সম্মান ফেরাতে এবার প্রার্থী তাঁর ছেলে সাদ্দাম হসেন ...

'আমাদের পরিবার নেই তাই আমরা দুর্নীতিগ্রস্ত নই', কেন এই কথা বললেন এক ভোট প্রার্থী ...

রাজ্যের উন্নয়ন মূলক প্রকল্পগুলি তুলে ধরার পাশাপাশি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে নিশানা করে বলেন, ব্যাঙ্ক, বিমা, বিএসএনএল বিক্রি করছে। রাষ্ট্রয়াত্ত্ব কারখানা বন্ধ করে। এরপরই মমতা বলেন তাঁর সরকার বিনা পয়সায় চাল দেয়। তাহলে কেন্দ্রের সরকারের উচিৎ বিনা পয়সার রান্নার গ্যাস দেওয়া। কিন্তু বর্তমানে গ্যাসের দাম ৯০০ টাকা। আর সেই জন্যই তিনি কেন্দ্রের মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন।