বচসার জেরে মর্মান্তিক পরিণতি! মাকে বাঁচাতে গিয়ে খুন হল আট বছরের শিশুকন্যা। প্রতিবেশীর সঙ্গে বচসার জেরে এই ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনার জেরে চাঞ্চল্যকর ছড়িয়েছে এলাকায়। প্রতিবেশীর শাবলে এফোঁড়-ওফোঁড় হয়ে যায় শিশুকন্য়ার দেহ। অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন-'ক্ষমা চাইতে হবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে', বাবুলকে আইনি নোটিস পাঠালেন অভিষেক

বুধবার এই ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের জঙ্গীপুর মহকুমার বাগদাবরা গ্রামে।  মৃত শিশুর নাম কনিকা ঘোষ। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত প্রতিবেশী সরবন ঘোষের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। স্থানীয় সূত্রে খবর, মৃত কণিকার বাবা জিতেন্দ্র ঘোষ ও মা জ্যোৎস্না ঘোষ এর সঙ্গে প্রতিবেশী সরবন ঘোষের বিবাদ অশান্তি রয়েছে বহুদিন ধরে। সেই অশান্তির কারণেই আচমকা বাড়িতে কেউ না থাকায় জ্যোৎস্না ঘোষের সঙ্গে প্রথমে চরম বচসা শুরু হয় সরবন ঘোষের । অভিযোগ, এরপর এই সরবন শাবল নিয়ে জ্যোৎস্না দেবীকে বেধড়ক মারতে শুরু করে। মাকে মার খেতে দেখে বাঁচানোর জন্য ছুটে আসে কনিকা। বাধা পেয়ে আট বছরের শিশুর দেহে শাবল ঢুকিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন-'চানক্য'-'পাণিনি'র মত মমতার শাসননীতি, মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ তৃণমূল সাংসদ

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এলাকার ছেলে চম্পট দেয় অভিযুক্ত। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মর্মান্তিক মৃত্যু হয় ওই শিশুর। ঘটনার পরই গোটা এলাকা জুড়ে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। মৃতের মা নিগৃহীত জ্যোৎস্না ঘোষ বলেন,"আমার ছোট্ট মেয়েকে যে এইভাবে নিশংস ভাবে খুন করল তার একমাত্র ফাঁসির সাজা চাই"।