তৃতীয় দফা নির্বাচনের আগে কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক বৈঠক কেন্দ্রীয় বাহিনী, ভোট পরবর্তী সমঝতা সহ একাধিক বিষয় নিয়ে মুখ খুললেন অধীর চৌধুরী। তিনি বলেব বাংলাসহ বাকি তিনটি রাজ্যে নির্বাচন হচ্ছে। কিন্তু কোথায় রাজনৈতিক হিংসা এমন ভয়ঙ্কর আকার গ্রহণ করেনি। আর ভোট সন্ত্রাসের জন্য শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দায়ি করা ঠিক হবে না বলেও মন্তব্য করেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী। একই সঙ্গে তিনি বলেন সন্ত্রাসের জন্য কিছুটা হলেও দায় বর্তায় রাজ্য পুলিশের ওপর। অধীরের কথায় ভোটে যে সন্ত্রাস হচ্ছে তাই  চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় এই রাজ্যে আইনশৃঙ্খলার বেআব্রু দশাটা। 

সাংবাদিক সম্মেলনে এদিন অধীর চৌধুরী দলমত নির্বিশেষে রাজ্যের মহিলাসহ প্রার্থীদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন। বুথ লুটপাঠের ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেন। তিনি বলেন কেন্দ্র ও রাজ্যের দুই শাসক দল সংঘর্ষের মাধ্যমে কেন্দ্র ও রাজ্যের সম্পর্কের অবনতি করছে। নির্বাচন কমিশন পর্যাপ্ত চেষ্টা করেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি বলেও মন্তব্য করেন অধীর চৌধুরী। অন্যদিকে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে কয়েকটি এলাকায় হিংসা ও হুমকি দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে নতুন করে।  গ্রেফতারও করা হয়েছে অভিযুক্তদের।

সিঙ্গুর আর ডোমজুড়ে 'শাহী' রোডশো, রাজীব ও রবীন্দ্রনাথের হয়ে ভোটের হাল ধরলেন অমিত ...

করোনা টিকা নিয়ে সতর্কতা, জেনে নিন কাদের কাদের টিকা দেওয়া হচ্ছে না ...
এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে ভোট পরবর্তী রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে অধীর চৌধুরী মুখ খুলেছেন। সাংবাদিকরা তাঁর কাছে জানতে চেয়েছিলেন ভোটের পরে যদি প্রয়োজন হয় কংগ্রেস মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে সমর্থন করবে কিনা। সরাসরি সেই প্রশ্নের কোনও উত্তর দেননি অধীর। তিনি বলেন সংযুক্ত মোর্চা নবান্ন দখলের লক্ষ্য নিয়েই ভোট যুদ্ধে সামিল হয়েছে। তিনি বুঝিয়েদেন রাজনৈতিতে কোনও কিছুই অসম্ভব নয়। কংগ্রেস সাংসদ বলেন, সংযুক্ত মোর্চাকে কারা সমর্থন করবে সেটা তাদের ব্যাপার। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় হেরে গেলে তিনি কোথায় যাবেন সেটা তাঁর ব্যপার করেও জানিয়েছেন অধীর। মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় চাইলে সংযুক্ত মোর্চার সঙ্গী হতে পারেও বলেও জানিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি বলেন পলিটিক্স ইজ দি আর্ট অফ পসিবিলিটিজ। একই সঙ্গে সোনিয়া গান্ধীকে লেখা চিঠির প্রসঙ্গ উত্থাপন করে অধীর চৌধুরী বলেন, যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কথায় কথায় কংগ্রেসকে মিউজিয়ামে পাঠিয়ে দেওয়ার কথা বলতেন তিনি এখন সনিয়া গান্ধীকে চিঠি লিখছেন। একই সঙ্গে অধীর বলেন এখনও ভারতে ধর্মনিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক রাজনীতি সনিয়া গান্ধী ও কংগ্রেসকে ঘিরেই আবর্তিত হয়। সেটা চিঠিতে স্বীকার করে নিয়েছেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়।  কংগ্রেসের কাছে মমতা হার স্বীকার করে নিয়েছেন বলেও মন্তব্য করেন অধীর।